ঢাকা ১১:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভিন্ন স্বাদের বিশ্বকাপে স্বাগতম

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৩০:৫৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২০ নভেম্বর ২০২২ ৬০ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মরুর বুকে প্রথম বিশ্বকাপ। সে কারণে যে ফুটবল বিশ্বকাপের অনেক প্রথা, অনেক রেওয়াজও ভেঙে গেছে, সেটা আপনি জেনে গেছেন বহু আগেই। 

বদলে গেছে উদ্বোধনী ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনের জায়গা। এমনিতে বিশ্বকাপ তো বটেই, গোটা ফুটবল দুনিয়াতেই এমন হয় যে ম্যাচের সংবাদ সম্মেলনটা হয় ম্যাচের ভেন্যুতেই। কিন্তু গতকাল কাতার-ইকুয়েডর ম্যাচের সংবাদ সম্মেলনটা হয়েছে দোহায় অবস্থিত মিডিয়া সেন্টারে।

সেসব অবশ্য কাতারের কথা। ঢাকায়, কিংবা বাংলাদেশের যে কোনো প্রান্তে বসে থাকা আপনার বিশ্বকাপ অভিজ্ঞতাটাও তো আমূলে বদলে গেছে! আর সব বার বিশ্বকাপ মানেই ছিল জুন-জুলাইয়ের ‘বর্ধিত গ্রীষ্মকালে’ খেলা দেখার স্মৃতি, কিন্তু এবার বড় পরিবর্তনটা ঘটে গেছে এখানেই। খেলাটা দেখতে হচ্ছে নভেম্বর-ডিসেম্বরে, শীতের আবহ গায়ে চড়িয়ে। 

তার কারণটা এবারের আয়োজক দেশের আবহাওয়া। জুন-জুলাইয়ে বাংলাদেশে বেশ গরম থাকে, মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে যে তাপমাত্রাটা সহনীয় মাত্রার বাইরে চলে যেতে বসে, সে তাপমাত্রায় ফুটবল খেলাই বা হয় কী করে? সে কারণেই এবার প্রথা ভেঙে বিশ্বকাপটা সরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে বছরের এই সময়টায়, যখন দোহায় তাপমাত্রাটা থাকবে ২০ এর ঘরের আশেপাশে। 

এরপরও কাতার নিজেদের আবহাওয়ার সঙ্গে যেন খেলোয়াড়রা মানিয়ে নিতে পারেন সহজেই, সে বিষয়ে বেশ সজাগ। এই প্রথম বিশ্বকাপে দেখা যাবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত স্টেডিয়াম। 

ভিন্নতা আরও অনেক কিছুতেই আছে। আবহাওয়া ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার আরও অনেক কিছুতে ইউরোপ-আমেরিকার অনেক দেশ থেকে ভিন্ন। যেমন ধরুন বিশ্বকাপের অনুষঙ্গ হিসেবে দেখা হয় যেসব কিছু, সেই দেদারসে মদ্যপান কিংবা উদ্দাম নৈশজীবন ইত্যাদি… তার সব কিছুতেই এবার বাঁধ সাধবে কাতার। রক্ষণশীল মুসলিম দেশ হওয়াতেই যে এমন সব কিছু, তা আপনি এতক্ষণে বুঝে যাওয়ার কথা!

কাতারের বিশ্বকাপের সমালোচনা শুরু থেকেই হয়ে এসেছে। দুর্নীতি, মানবাধিকার লঙ্ঘন ইত্যাদি ইত্যাদি নিয়ে কথা কম উঠছে না। যে কারণে বিশ্বকাপের আগের সংবাদ সম্মেলনেও কথা বলতে হলো ফিফা সভাপতিকে।

তবে সব কথার শেষ কথা, মাঠের ফুটবল শুরু হচ্ছে আজ থেকে। সব ঠিকঠাক হলে সমালোচনাও থিতিয়ে আসার কথা বেশ। শুরুটা হবে যে ম্যাচ দিয়ে সে ম্যাচেও অবশ্য পরিবর্তন আসতে পারত। বিশ্বকাপের সূচিটা যখন প্রথম প্রকাশ পেয়েছিল, সেখানেও দেখা যাচ্ছিল প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে সেনেগাল আর নেদারল্যান্ডস। যেটা হলে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক দেশের মাঠে নামার রেওয়াজটাও যেত বদলে। 

পরে অবশ্য এই সূচি পরিবর্তন করেছে ফিফা, কাতার আর ইকুয়েডর ম্যাচটাকেই নিয়ে এসেছে সবার আগে। অন্তত এই নিয়মটা রক্ষা পেয়ে গেছে তাই। সেই ম্যাচ দিয়েই আজ উঠছে বিশ্বকাপ ফুটবলের পর্দা। চার বছরেরও বেশি দীর্ঘ অপেক্ষারও ঘটছে ইতি। এবার সময় চার সপ্তাহ ঠাসা সূচির ফুটবল উন্মাদনার।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

ভিন্ন স্বাদের বিশ্বকাপে স্বাগতম

আপডেট সময় : ০৪:৩০:৫৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২০ নভেম্বর ২০২২

মরুর বুকে প্রথম বিশ্বকাপ। সে কারণে যে ফুটবল বিশ্বকাপের অনেক প্রথা, অনেক রেওয়াজও ভেঙে গেছে, সেটা আপনি জেনে গেছেন বহু আগেই। 

বদলে গেছে উদ্বোধনী ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনের জায়গা। এমনিতে বিশ্বকাপ তো বটেই, গোটা ফুটবল দুনিয়াতেই এমন হয় যে ম্যাচের সংবাদ সম্মেলনটা হয় ম্যাচের ভেন্যুতেই। কিন্তু গতকাল কাতার-ইকুয়েডর ম্যাচের সংবাদ সম্মেলনটা হয়েছে দোহায় অবস্থিত মিডিয়া সেন্টারে।

সেসব অবশ্য কাতারের কথা। ঢাকায়, কিংবা বাংলাদেশের যে কোনো প্রান্তে বসে থাকা আপনার বিশ্বকাপ অভিজ্ঞতাটাও তো আমূলে বদলে গেছে! আর সব বার বিশ্বকাপ মানেই ছিল জুন-জুলাইয়ের ‘বর্ধিত গ্রীষ্মকালে’ খেলা দেখার স্মৃতি, কিন্তু এবার বড় পরিবর্তনটা ঘটে গেছে এখানেই। খেলাটা দেখতে হচ্ছে নভেম্বর-ডিসেম্বরে, শীতের আবহ গায়ে চড়িয়ে। 

তার কারণটা এবারের আয়োজক দেশের আবহাওয়া। জুন-জুলাইয়ে বাংলাদেশে বেশ গরম থাকে, মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে যে তাপমাত্রাটা সহনীয় মাত্রার বাইরে চলে যেতে বসে, সে তাপমাত্রায় ফুটবল খেলাই বা হয় কী করে? সে কারণেই এবার প্রথা ভেঙে বিশ্বকাপটা সরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে বছরের এই সময়টায়, যখন দোহায় তাপমাত্রাটা থাকবে ২০ এর ঘরের আশেপাশে। 

এরপরও কাতার নিজেদের আবহাওয়ার সঙ্গে যেন খেলোয়াড়রা মানিয়ে নিতে পারেন সহজেই, সে বিষয়ে বেশ সজাগ। এই প্রথম বিশ্বকাপে দেখা যাবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত স্টেডিয়াম। 

ভিন্নতা আরও অনেক কিছুতেই আছে। আবহাওয়া ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার আরও অনেক কিছুতে ইউরোপ-আমেরিকার অনেক দেশ থেকে ভিন্ন। যেমন ধরুন বিশ্বকাপের অনুষঙ্গ হিসেবে দেখা হয় যেসব কিছু, সেই দেদারসে মদ্যপান কিংবা উদ্দাম নৈশজীবন ইত্যাদি… তার সব কিছুতেই এবার বাঁধ সাধবে কাতার। রক্ষণশীল মুসলিম দেশ হওয়াতেই যে এমন সব কিছু, তা আপনি এতক্ষণে বুঝে যাওয়ার কথা!

কাতারের বিশ্বকাপের সমালোচনা শুরু থেকেই হয়ে এসেছে। দুর্নীতি, মানবাধিকার লঙ্ঘন ইত্যাদি ইত্যাদি নিয়ে কথা কম উঠছে না। যে কারণে বিশ্বকাপের আগের সংবাদ সম্মেলনেও কথা বলতে হলো ফিফা সভাপতিকে।

তবে সব কথার শেষ কথা, মাঠের ফুটবল শুরু হচ্ছে আজ থেকে। সব ঠিকঠাক হলে সমালোচনাও থিতিয়ে আসার কথা বেশ। শুরুটা হবে যে ম্যাচ দিয়ে সে ম্যাচেও অবশ্য পরিবর্তন আসতে পারত। বিশ্বকাপের সূচিটা যখন প্রথম প্রকাশ পেয়েছিল, সেখানেও দেখা যাচ্ছিল প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে সেনেগাল আর নেদারল্যান্ডস। যেটা হলে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক দেশের মাঠে নামার রেওয়াজটাও যেত বদলে। 

পরে অবশ্য এই সূচি পরিবর্তন করেছে ফিফা, কাতার আর ইকুয়েডর ম্যাচটাকেই নিয়ে এসেছে সবার আগে। অন্তত এই নিয়মটা রক্ষা পেয়ে গেছে তাই। সেই ম্যাচ দিয়েই আজ উঠছে বিশ্বকাপ ফুটবলের পর্দা। চার বছরেরও বেশি দীর্ঘ অপেক্ষারও ঘটছে ইতি। এবার সময় চার সপ্তাহ ঠাসা সূচির ফুটবল উন্মাদনার।