ঢাকা ০৯:৫০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বরুড়ার কিশোরীকে গনধর্ষণের অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:০৩:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ ১১০ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বরুড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ বরুড়ার খোশবাস দঃ ইউনিয়নের হোসেনপুরে এক কিশোরী গনধর্ষনের শিকার হয়েছে।বরুড়ার ভবানীর ইউনিয়নের ভিকটিম কিশোরীর দেয়া তথ্য অনুয়ায়ী ইপিজেড ফাঁড়ি থানা পুলিশ মিনার হোসেন পিতাঃ- আবুল কালাম ও মোঃ নাছির হোসেন পিতা মোঃ এয়াছিন কে গ্রেফতার করে বরুড়া থানায় সোপর্দ করে। এর পর গ্রেফতার আসামীদের থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বরুড়া থানা পুলিশ আরো তিন আসামীকে গ্রেফতার করে বরুড়া থানায় নিয়ে আসে। গ্রেফতারকৃত পাঁচ আসামী ১-মোঃ সোহেল ভুঁইয়া, পিতাঃ- গফুর ভুঁইয়া,২- মোঃ নাছির, পিতাঃ মোঃ ইয়াছিন মিয়া, ৩- মোয়াজ্জেম পিতাঃ- অজ্ঞাত, ৪-মোঃ নোমান পিতাঃ- মোঃ আমিন(সাবেক মেম্বার), ৫- মোঃ মিনার হোসেন পিতাঃ- আবুল কালাম (স্কুলবাড়ী)
ভিকটিমের পারিবারিক সূত্রে যানা যায়,মোঃ নাছির পিতাঃ- মোঃ ইয়াছিন সম্পর্কে ভিকটিমের তালুই আর মোঃ মিনার হোসেন পিতাঃ- আবুল কালাম (স্কুলবাড়ী) ভিকটিমের বেয়াই আর এরই সূত্র ধরে তাকে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে, বুধবার তাঁকে সন্ধ্যার পর তাকে ফুসলিয়ে কুমিল্লা ইপিজেড সংলগ্ন এয়াছিন মার্কেট বাসা থেকে এনে কৌশলে বরুড়ার হোসেনপুর এলাকায় এনে এই নারকীয় ঘটনা ঘটায়। স্পর্শ কাতর ঘটনা জানাতে গিয়ে ভিকটিমের বোন আরো বলেন ঘটনাস্থল খোশবাস দঃ ইউনিয়নের হোসেনপুর, বুধবার রাত দশটা থেকে একটা পর্যন্ত উন্মুক্ত জলাশয়ে ধর্ষণ করে এর পর সি এন জি করে আবারো কুমিল্লায় পাঠিয়ে দেয়। এ সময় ভিকটিমের পরিবারের সদস্যরা আসামীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন। বরুড়া থানা সূত্রে জানা যায় এ ব্যাপারে একটি ধর্ষন মামলা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

বরুড়ার কিশোরীকে গনধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৩:০৩:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২

বরুড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ বরুড়ার খোশবাস দঃ ইউনিয়নের হোসেনপুরে এক কিশোরী গনধর্ষনের শিকার হয়েছে।বরুড়ার ভবানীর ইউনিয়নের ভিকটিম কিশোরীর দেয়া তথ্য অনুয়ায়ী ইপিজেড ফাঁড়ি থানা পুলিশ মিনার হোসেন পিতাঃ- আবুল কালাম ও মোঃ নাছির হোসেন পিতা মোঃ এয়াছিন কে গ্রেফতার করে বরুড়া থানায় সোপর্দ করে। এর পর গ্রেফতার আসামীদের থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বরুড়া থানা পুলিশ আরো তিন আসামীকে গ্রেফতার করে বরুড়া থানায় নিয়ে আসে। গ্রেফতারকৃত পাঁচ আসামী ১-মোঃ সোহেল ভুঁইয়া, পিতাঃ- গফুর ভুঁইয়া,২- মোঃ নাছির, পিতাঃ মোঃ ইয়াছিন মিয়া, ৩- মোয়াজ্জেম পিতাঃ- অজ্ঞাত, ৪-মোঃ নোমান পিতাঃ- মোঃ আমিন(সাবেক মেম্বার), ৫- মোঃ মিনার হোসেন পিতাঃ- আবুল কালাম (স্কুলবাড়ী)
ভিকটিমের পারিবারিক সূত্রে যানা যায়,মোঃ নাছির পিতাঃ- মোঃ ইয়াছিন সম্পর্কে ভিকটিমের তালুই আর মোঃ মিনার হোসেন পিতাঃ- আবুল কালাম (স্কুলবাড়ী) ভিকটিমের বেয়াই আর এরই সূত্র ধরে তাকে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে, বুধবার তাঁকে সন্ধ্যার পর তাকে ফুসলিয়ে কুমিল্লা ইপিজেড সংলগ্ন এয়াছিন মার্কেট বাসা থেকে এনে কৌশলে বরুড়ার হোসেনপুর এলাকায় এনে এই নারকীয় ঘটনা ঘটায়। স্পর্শ কাতর ঘটনা জানাতে গিয়ে ভিকটিমের বোন আরো বলেন ঘটনাস্থল খোশবাস দঃ ইউনিয়নের হোসেনপুর, বুধবার রাত দশটা থেকে একটা পর্যন্ত উন্মুক্ত জলাশয়ে ধর্ষণ করে এর পর সি এন জি করে আবারো কুমিল্লায় পাঠিয়ে দেয়। এ সময় ভিকটিমের পরিবারের সদস্যরা আসামীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন। বরুড়া থানা সূত্রে জানা যায় এ ব্যাপারে একটি ধর্ষন মামলা হয়েছে।