ঢাকা ০৩:১৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আশুগঞ্জে এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে আরাফাত হোসেন (১৬) নামে এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ, কৌশলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় এক কিশোরীকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে আশুগঞ্জ উপজেলার সোনারামপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে ওই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

আরাফাত হোসেন জেলা শহরের টেংকের পাড় এলাকার হেলাল উদ্দিনের ছেলে। সে তাহমিদ সিফাত ও তৌয়ব সহপাঠী, তারা জানান আরাফাত খুব নম্র ভদ্র ছেলে, তার এই মর্মান্তিক ঘটনাটি মেনে নেয়া কঠিন।

পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, তাদের ছেলেকে সৌদি প্রবাসী নোমানের পরামর্শে ইয়াছিন ও হযরত নামের দুই যুবক পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।

পরিবার জানায়, বুধবার সকালে আরাফাত জন্মনিবন্ধন করার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর থেকে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। পরে বৃহস্পতিবার রাতে আশুগঞ্জ থেকে আরাফাতের মৃত্যুর বিষয়টি অবহিত করা হয়।

ওই কিশোরের পরিবার আরও জানায়, আরাফাতের বন্ধু সৌদি প্রবাসী আশুগঞ্জের লালপুর এলাকার নোমানের পরামর্শে শরীফপুর এলাকার ইয়াছিন জেলা সদরের ঘাটুরা গ্রামের মোবারক মিয়ার মেয়ে তিশাসহ (১৭) আরফাতকে সঙ্গে নিয়ে আশুগঞ্জে হযরতের বাড়িতে উঠে। সেখানে তাকে পরিকল্পিতভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়।

এ বিষয়ে আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আজাদ রহমান জানান, প্রাথমিকভাবে বিষয়টিকে আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়িতে অবস্থানকারী তরুণী তিশাকে আটক করা হয়েছে।

আপলোডকারীর তথ্য

আশুগঞ্জে এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় ০২:৪২:৪৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে আরাফাত হোসেন (১৬) নামে এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ, কৌশলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় এক কিশোরীকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে আশুগঞ্জ উপজেলার সোনারামপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে ওই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

আরাফাত হোসেন জেলা শহরের টেংকের পাড় এলাকার হেলাল উদ্দিনের ছেলে। সে তাহমিদ সিফাত ও তৌয়ব সহপাঠী, তারা জানান আরাফাত খুব নম্র ভদ্র ছেলে, তার এই মর্মান্তিক ঘটনাটি মেনে নেয়া কঠিন।

পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, তাদের ছেলেকে সৌদি প্রবাসী নোমানের পরামর্শে ইয়াছিন ও হযরত নামের দুই যুবক পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।

পরিবার জানায়, বুধবার সকালে আরাফাত জন্মনিবন্ধন করার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর থেকে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। পরে বৃহস্পতিবার রাতে আশুগঞ্জ থেকে আরাফাতের মৃত্যুর বিষয়টি অবহিত করা হয়।

ওই কিশোরের পরিবার আরও জানায়, আরাফাতের বন্ধু সৌদি প্রবাসী আশুগঞ্জের লালপুর এলাকার নোমানের পরামর্শে শরীফপুর এলাকার ইয়াছিন জেলা সদরের ঘাটুরা গ্রামের মোবারক মিয়ার মেয়ে তিশাসহ (১৭) আরফাতকে সঙ্গে নিয়ে আশুগঞ্জে হযরতের বাড়িতে উঠে। সেখানে তাকে পরিকল্পিতভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়।

এ বিষয়ে আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আজাদ রহমান জানান, প্রাথমিকভাবে বিষয়টিকে আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়িতে অবস্থানকারী তরুণী তিশাকে আটক করা হয়েছে।