ঢাকা ০৯:০৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo রূপসায় ইটভাটার মাটিতে সড়ক বেহাল দশা : হালকা বৃষ্টিতে একের পর এক দূর্ঘটনা Logo জুয়েলারি খাতে আরোপিত শুল্ক হার কমানো ও আর্থিক প্রণোদনার প্রস্তাব বাজুসের Logo বাড়ির পাশে রাস্তার ঢালাই ঢালু হওয়ার অভিযোগে স্ত্রিকে কুপিয়ে জখম Logo দেবিদ্বারে ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক উন্নয়নের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন Logo বড়পুকুরিয়া কয়লাখনিতে স্থানীয়দের ক্ষতিপূরণের দাবি Logo রূপগঞ্জে পূর্বশত্রুতার জেরে দুই জনকে পিটিয়ে আহত : থানায় পাল্টা পাল্টি অভিযোগ Logo শিশুর খতনায় অতিরিক্ত রক্তপাত, উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারকে বদলি Logo বরুড়া উপজেলা যুব রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ১৫ সদস্যের কমিটি অনুমোদন Logo যশোরে ট্রাক ও মোটরসাইকেলে মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত -২, ঘাতক ট্রাক আটক Logo বনিকপাড়া’র বার্ষিক মহোৎসব শুরু

এমপিও ভুক্ত শিক্ষা জাতিয়করণের দাবিতে মুরাদনগরে কর্মবিরতি পালন

সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষক- কমর্চারিদের বেতন ভাতার বৈষম্য দূরীকরণের লক্ষ্যে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে সারা দেশের ন্যায় কুমিল্লার মুরাদনগরেও কর্মবিরতি পালন করেছে উপজেলার সকল এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী জাতীয়করণ প্রত্যাশী মহাজোটের আহবানে ১২ ও ১৩ মার্চ তিন ঘন্টা করে দুইদিন এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীসহ শিক্ষকদের দাবির সাথে একাত্মতা প্রকাশের জন্য ছাত্রছাত্রীরা ও অংশ নেন। তাছাড়া নতুন ঘোষনা অনুসারে ১৪ তারিখও কর্মবিরতি পালন করবে বলে জানান শিক্ষক নেতারা।
উপজেলার বিভিন্ন স্কুল পরিদর্শনে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা যায়, শিক্ষকদের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরাও বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন হাতে নিয়ে শিক্ষা জাতীয়করণের জন্য বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছে। অনেক জায়গায় শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অভিভাবকরা আন্দোলনের সাথে একাত্মতা পোষণ করেছেন বলেও জানা যায়।
আন্দোলনের কারণ জানতে চাইলে শিক্ষক নেতারা বলেন, এমপিও ভুক্ত শিক্ষকরা মাত্র ২৫ শতাংশ উৎসব ভাতা, ১ হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া ও ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা পান। একই কারিকুলামে একই সিলেবাসে পাঠদান করিয়েও সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের বেতনে রয়েছে বিস্তর পার্থক্য। বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের অবসরে যাওয়ার পর অবসর সুবিধা ও কল্যাণ ট্রাস্টের টাকা পেতে বছরের পর বছর অপেক্ষা করতে হয়। তাছাড়া বিগত কয়েক বছর অবসর সুবিধা বেতন থেকে অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কেটে নেওয়া হচ্ছে। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করা হলেও প্রতিকার পাওয়া যায়নি। তাই এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করে শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে বৈষম্য দূর করতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমরা দুইদিন ধরে তিন ঘণ্টা করে কর্মবিরতি পালন করছি।
তারা আরো বলেন, বর্তমান সরকার স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে শিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। শিক্ষা ব্যবস্থা স্মার্ট করতে প্রয়োজন স্মার্ট শিক্ষক। তাই স্মার্ট শিক্ষক পেতে শিক্ষায় বিনিয়োগ বৃদ্ধি সহ মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণের বিকল্প নেই।
উল্লেখ্যঃ এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী জাতীয়করণ প্রত্যাশী মহাজোট নেতৃত্বে গত ২৪ শে ফেব্রুয়ারি থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচির পালন করে আসছে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপসায় ইটভাটার মাটিতে সড়ক বেহাল দশা : হালকা বৃষ্টিতে একের পর এক দূর্ঘটনা

এমপিও ভুক্ত শিক্ষা জাতিয়করণের দাবিতে মুরাদনগরে কর্মবিরতি পালন

আপডেট সময় ১২:৩৫:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষক- কমর্চারিদের বেতন ভাতার বৈষম্য দূরীকরণের লক্ষ্যে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে সারা দেশের ন্যায় কুমিল্লার মুরাদনগরেও কর্মবিরতি পালন করেছে উপজেলার সকল এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী জাতীয়করণ প্রত্যাশী মহাজোটের আহবানে ১২ ও ১৩ মার্চ তিন ঘন্টা করে দুইদিন এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীসহ শিক্ষকদের দাবির সাথে একাত্মতা প্রকাশের জন্য ছাত্রছাত্রীরা ও অংশ নেন। তাছাড়া নতুন ঘোষনা অনুসারে ১৪ তারিখও কর্মবিরতি পালন করবে বলে জানান শিক্ষক নেতারা।
উপজেলার বিভিন্ন স্কুল পরিদর্শনে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা যায়, শিক্ষকদের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরাও বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন হাতে নিয়ে শিক্ষা জাতীয়করণের জন্য বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছে। অনেক জায়গায় শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অভিভাবকরা আন্দোলনের সাথে একাত্মতা পোষণ করেছেন বলেও জানা যায়।
আন্দোলনের কারণ জানতে চাইলে শিক্ষক নেতারা বলেন, এমপিও ভুক্ত শিক্ষকরা মাত্র ২৫ শতাংশ উৎসব ভাতা, ১ হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া ও ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা পান। একই কারিকুলামে একই সিলেবাসে পাঠদান করিয়েও সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের বেতনে রয়েছে বিস্তর পার্থক্য। বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারীদের অবসরে যাওয়ার পর অবসর সুবিধা ও কল্যাণ ট্রাস্টের টাকা পেতে বছরের পর বছর অপেক্ষা করতে হয়। তাছাড়া বিগত কয়েক বছর অবসর সুবিধা বেতন থেকে অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কেটে নেওয়া হচ্ছে। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করা হলেও প্রতিকার পাওয়া যায়নি। তাই এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করে শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে বৈষম্য দূর করতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমরা দুইদিন ধরে তিন ঘণ্টা করে কর্মবিরতি পালন করছি।
তারা আরো বলেন, বর্তমান সরকার স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে শিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। শিক্ষা ব্যবস্থা স্মার্ট করতে প্রয়োজন স্মার্ট শিক্ষক। তাই স্মার্ট শিক্ষক পেতে শিক্ষায় বিনিয়োগ বৃদ্ধি সহ মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণের বিকল্প নেই।
উল্লেখ্যঃ এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী জাতীয়করণ প্রত্যাশী মহাজোট নেতৃত্বে গত ২৪ শে ফেব্রুয়ারি থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এমপিওভুক্ত শিক্ষা জাতীয়করণের দাবিতে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচির পালন করে আসছে।