ঢাকা ১২:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, সেই মাদ্রাসা শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত

নওগাঁর রাণীনগরে ছাত্রীকে যৌন হয়রানিসহ নানা অভিযোগে আল-আমিন দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক (শরীরচর্চা) হারুনুর রশিদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে রাণীনগর আল-আমিন দাখিল মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

চিঠির অনুলিপি মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, নওগাঁ-৬ আসনের সংসদ সদস্য, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও অফিসার ইনচার্জ বরাবর পাঠানো হয়েছে।

বরখাস্ত চিঠিতে কারণ হিসেবে বলা হয়, শিক্ষক হারুনুর রশিদ মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, শরীরের স্পর্শকাতর স্থান নিয়ে অশ্লীল কথাবার্তা বলা, ক্লাশে অমনোযোগিতা, শ্রেণিকক্ষে বসে মোবাইলে ভিডিও দেখা, মাদ্রাসা প্রধানের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়া এবং অবাধ্যতার পর্যায়ে পড়ে- এমন আচরণ করার অপরাধ উল্লেখ করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাণীনগর আল-আমিন দাখিল মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট শরিফ উদ্দীন মাযহারী বলেন, সাময়িক বরখাস্তের চিঠি শিক্ষক হারুনুর রশিদকে মঙ্গলবারই দেওয়া হয়েছে।

সাময়িক বরখাস্তের ব্যাপারে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে শিক্ষক হারুনুর রশিদ বিষয়টি নিয়ে এড়িয়ে যান। বারবার মাদ্রাসা সুপারের সঙ্গে কথা বলতে বলেন তিনি।

রাণীনগর উপজেলা মাধ্যমিক একাডেমিক সুপাভাইজার কামরুল হাসান বলেন, শিক্ষক হারুনুর রশিদকে মাদ্রাসা থেকে সাময়িক বরখাস্ত করার একটি চিঠি পেয়েছি। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অফিসিয়ালি জানানো হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, সেই মাদ্রাসা শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত

আপডেট সময় ০৯:২২:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ জুন ২০২৩

নওগাঁর রাণীনগরে ছাত্রীকে যৌন হয়রানিসহ নানা অভিযোগে আল-আমিন দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক (শরীরচর্চা) হারুনুর রশিদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে রাণীনগর আল-আমিন দাখিল মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

চিঠির অনুলিপি মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান, নওগাঁ-৬ আসনের সংসদ সদস্য, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও অফিসার ইনচার্জ বরাবর পাঠানো হয়েছে।

বরখাস্ত চিঠিতে কারণ হিসেবে বলা হয়, শিক্ষক হারুনুর রশিদ মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, শরীরের স্পর্শকাতর স্থান নিয়ে অশ্লীল কথাবার্তা বলা, ক্লাশে অমনোযোগিতা, শ্রেণিকক্ষে বসে মোবাইলে ভিডিও দেখা, মাদ্রাসা প্রধানের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়া এবং অবাধ্যতার পর্যায়ে পড়ে- এমন আচরণ করার অপরাধ উল্লেখ করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাণীনগর আল-আমিন দাখিল মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট শরিফ উদ্দীন মাযহারী বলেন, সাময়িক বরখাস্তের চিঠি শিক্ষক হারুনুর রশিদকে মঙ্গলবারই দেওয়া হয়েছে।

সাময়িক বরখাস্তের ব্যাপারে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে শিক্ষক হারুনুর রশিদ বিষয়টি নিয়ে এড়িয়ে যান। বারবার মাদ্রাসা সুপারের সঙ্গে কথা বলতে বলেন তিনি।

রাণীনগর উপজেলা মাধ্যমিক একাডেমিক সুপাভাইজার কামরুল হাসান বলেন, শিক্ষক হারুনুর রশিদকে মাদ্রাসা থেকে সাময়িক বরখাস্ত করার একটি চিঠি পেয়েছি। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অফিসিয়ালি জানানো হবে।