ঢাকা ০১:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঝালকাঠিতে তালাবদ্ধ ঘরে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠি রাজাপুর উপজেলায় তালাবদ্ধ ঘরে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।
সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে পুলিশ ঘরের তালা ভেঙ্গে যুবকের মৃত্যু দেহ উদ্ধার করেন।
ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়নের বাঁশতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত ওই যুবকের নাম মোঃ পলাশ খন্দকার (৩৬)। সে ঐ এলাকার আবুল খন্দকারের ছেলে।

পুলিশ ও প্রতিবেশীরা জানায়, পলাশ একজন মাদক সেবনকারী। মাদক সেবন করে স্ত্রী-সন্তানদের মারধর করতো। পলাশের বাবা ঢাকায় থাকেন। গত পাঁচদিন পূর্বে তার স্ত্রী সাথী দুই মেয়ে তামান্না (১০) ও আফসানাকে (৫) নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যায়। এরপর থেকে পলাশ বাড়িতে একা। ঘরে বসে মাদক সেবন করায় সব সময় তার ঘরে সামনে থেকে তালা লাগানো থাকতো। সোমবার রাতে বিদ্যুৎ চলেগেলে বাড়ির লোকজন উঠোনে নেমে আসে। এ সময় পলাশের ঘরে কোন আলো না দেখে কৌতুহলবসতো তার ঘরের জানালায় টসলাইটের আলো ফেলে পলাশকে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় খাটের উপর পিছনে চিত অবস্থায় হেলানো দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাতেই ঘরের তালা ভেঙ্গে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। খাটের উপর হাটুগারা চিত অবস্থায় দেখে পলাশের মৃত্যু নিয়ে জনমনে রহস্যের জন্ম দেয়। তবে পলাশের শরীর ফুলতে শুরু করায় তার মৃত্যু দিনের বেলায় হতে পারে বলেও প্রাথমিকধারণা করেছেন পুলিশ। পলাশের ঘর থেকে মাদক সেবনের আলামতও উদ্ধার করেন পুলিশ।

রাজাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. ফিরোজ কামাল বলেন, একটি অপমৃত্যুর মামলা রেকর্ড করে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে মঙ্গলবার সকালে লাশ ময়না তদন্তে ঝালকাঠি মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ঝালকাঠিতে তালাবদ্ধ ঘরে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু

আপডেট সময় ১২:২০:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০২৩

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠি রাজাপুর উপজেলায় তালাবদ্ধ ঘরে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।
সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে পুলিশ ঘরের তালা ভেঙ্গে যুবকের মৃত্যু দেহ উদ্ধার করেন।
ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়নের বাঁশতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৃত ওই যুবকের নাম মোঃ পলাশ খন্দকার (৩৬)। সে ঐ এলাকার আবুল খন্দকারের ছেলে।

পুলিশ ও প্রতিবেশীরা জানায়, পলাশ একজন মাদক সেবনকারী। মাদক সেবন করে স্ত্রী-সন্তানদের মারধর করতো। পলাশের বাবা ঢাকায় থাকেন। গত পাঁচদিন পূর্বে তার স্ত্রী সাথী দুই মেয়ে তামান্না (১০) ও আফসানাকে (৫) নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যায়। এরপর থেকে পলাশ বাড়িতে একা। ঘরে বসে মাদক সেবন করায় সব সময় তার ঘরে সামনে থেকে তালা লাগানো থাকতো। সোমবার রাতে বিদ্যুৎ চলেগেলে বাড়ির লোকজন উঠোনে নেমে আসে। এ সময় পলাশের ঘরে কোন আলো না দেখে কৌতুহলবসতো তার ঘরের জানালায় টসলাইটের আলো ফেলে পলাশকে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় খাটের উপর পিছনে চিত অবস্থায় হেলানো দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাতেই ঘরের তালা ভেঙ্গে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। খাটের উপর হাটুগারা চিত অবস্থায় দেখে পলাশের মৃত্যু নিয়ে জনমনে রহস্যের জন্ম দেয়। তবে পলাশের শরীর ফুলতে শুরু করায় তার মৃত্যু দিনের বেলায় হতে পারে বলেও প্রাথমিকধারণা করেছেন পুলিশ। পলাশের ঘর থেকে মাদক সেবনের আলামতও উদ্ধার করেন পুলিশ।

রাজাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. ফিরোজ কামাল বলেন, একটি অপমৃত্যুর মামলা রেকর্ড করে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে মঙ্গলবার সকালে লাশ ময়না তদন্তে ঝালকাঠি মর্গে পাঠানো হয়েছে।