ঢাকা ০৩:৪৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ঝিনাইদহ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্তাদের হাতে সাংবাদিক লাঞ্ছিত

ঝিনাইদহ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে
সাংবাদিকের মোবাইল কেড়ে নেওয়া সহ শারিরীক ভাবে লাঞ্ছিত করার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দুপুরে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার কাদিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। উল্লেখ্য, এর আগেও ঝিনাইদহ শহরের এক পৌর কাউন্সিলরকে শাররিকভাবে লাঞ্চিত করে বিতর্কিত ঘটনা ঘটিয়েছিল ওই দপ্তরের সদস্যরা।ভুক্তভোগী গাজীটিভির জেলা প্রতিনিধি ওলিয়ার রহমান জানান, ঝিনাইদহ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা কাদিপুর গ্রামে অভিযান চালাচ্ছে এমন খবর পেয়ে তিনি দুপুরে সংবাদ সংগ্রহে যায়। তিনি সেখানে পৌছে সাংবাদিক পরিচয় দেওয়া মাত্রই তারা ক্ষেপে যান। এরপর আমার মোবাইল কেড়ে নিয়ে শারিরীক ভাবে লাঞ্চিত করে বাইরে বের করে দেন।
এ অভিযানে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের পরিদর্শক বিশ্বাস মফিদুল ইসলাম, উপ-পরিদর্শক আলতাফ হোসেন, সহকারী উপ-পরিদর্শক পাপিয়া সুলতানা, সিপাই শ্যামল, কামরুলসহ কয়েকজন অংশ নেয়। তবে সেখান থেকে কোন মাদক উদ্ধার বা কাউকে আটক করতে পারেনি।অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়া পরিদর্শক বিশ্বাস মফিদুল ইসলাম বলেন, না বুঝে আমার এক সিপাই তার মোবাইলটা নিয়ে নিয়েছিলো। পরে আবার মোবাইলটা ফেরত দেয়। সহকারী পরিচালক গোলক মজুমদার বলেন, জিটিভির সাংবাদিকের সাখে একটু ভুলবোঝাবুঝি হয়েছিলো মাত্র।
এদিকে সাংবাদিক ওলিয়ার রহমানকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা
জানিয়েছেন কালীগঞ্জ ও ঝিনাইদহ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ
সম্পাদক সহ জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা নিন্দা ও ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ঝিনাইদহ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্তাদের হাতে সাংবাদিক লাঞ্ছিত

আপডেট সময় ০৪:৫৩:৩৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ এপ্রিল ২০২৩

ঝিনাইদহ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে
সাংবাদিকের মোবাইল কেড়ে নেওয়া সহ শারিরীক ভাবে লাঞ্ছিত করার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দুপুরে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার কাদিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। উল্লেখ্য, এর আগেও ঝিনাইদহ শহরের এক পৌর কাউন্সিলরকে শাররিকভাবে লাঞ্চিত করে বিতর্কিত ঘটনা ঘটিয়েছিল ওই দপ্তরের সদস্যরা।ভুক্তভোগী গাজীটিভির জেলা প্রতিনিধি ওলিয়ার রহমান জানান, ঝিনাইদহ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যরা কাদিপুর গ্রামে অভিযান চালাচ্ছে এমন খবর পেয়ে তিনি দুপুরে সংবাদ সংগ্রহে যায়। তিনি সেখানে পৌছে সাংবাদিক পরিচয় দেওয়া মাত্রই তারা ক্ষেপে যান। এরপর আমার মোবাইল কেড়ে নিয়ে শারিরীক ভাবে লাঞ্চিত করে বাইরে বের করে দেন।
এ অভিযানে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের পরিদর্শক বিশ্বাস মফিদুল ইসলাম, উপ-পরিদর্শক আলতাফ হোসেন, সহকারী উপ-পরিদর্শক পাপিয়া সুলতানা, সিপাই শ্যামল, কামরুলসহ কয়েকজন অংশ নেয়। তবে সেখান থেকে কোন মাদক উদ্ধার বা কাউকে আটক করতে পারেনি।অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়া পরিদর্শক বিশ্বাস মফিদুল ইসলাম বলেন, না বুঝে আমার এক সিপাই তার মোবাইলটা নিয়ে নিয়েছিলো। পরে আবার মোবাইলটা ফেরত দেয়। সহকারী পরিচালক গোলক মজুমদার বলেন, জিটিভির সাংবাদিকের সাখে একটু ভুলবোঝাবুঝি হয়েছিলো মাত্র।
এদিকে সাংবাদিক ওলিয়ার রহমানকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় তীব্র নিন্দা
জানিয়েছেন কালীগঞ্জ ও ঝিনাইদহ জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ
সম্পাদক সহ জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা নিন্দা ও ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।