ঢাকা ০৪:৩৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দেবিদ্বারে জুয়া খেলার সময় পুলিশ দেখে পালাতে গিয়ে যুবলীগ কর্মীর মৃত্যু

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

কুমিল্লার দেবিদ্বারে জুয়া খেলার সময় পুলিশ দেখে পালাতে গিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে আক্কাস আলী (৫০) নামের এক যুবলীগ কর্মী নিহত হয়েছে। বুধবার বেলা আড়াইটার সময় ঘটনাটি ঘটে দেবিদ্বার উপজেলার ৬নং ফতেহাবাদ ইউনিয়নের চান্দপুর গ্রামের গোমতী নদীর বেড়িবাঁধের উপর।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার দুপুর আড়াইটার সময় চান্দপুর গ্রামের নায়েব আলীর পুত্র আক্কাস আলীসহ ৫-৬ জন জুয়া খেলছিলেন। এ সময় বিএনপি ডাকা ৭২ ঘণ্টা অবরোধের দ্বিতীয় দিনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা টহল পুলিশের একটি দল ওই এলাকায় প্রবেশ করলে খেলোয়াড়রা যার যার মতো পালাতে গিয়ে কেউ নদীতে ঝাঁপ দেন কেউবা পালিয়ে আত্মরক্ষার চেষ্টা চালায়। এ সময় আক্কাস আলী পালাতে গিয়ে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে অচেতন হয়ে পড়েন। তাকে দ্রুত দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে নিহত আক্কাস আলীর ভাই জানান, আমার ভাইসহ কয়েকজন বাড়ির পাশে গোমতী পাড়ে তাস খেলছিল, এ সময় পুলিশ দেখে পালাতে গিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে অচেতন হয়ে মারা যান। আমার ভাই এর আগে আরও দুবার স্ট্রোক করেছিলেন।

ফতেহাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান মাসুদ জানান, আক্কাস আলী যুবলীগের একজন কর্মী ছিলেন। তিনি অসুস্থ ছিলেন। এর আগে দুবার হার্টঅ্যাটাক করেছিল। তারা ৫-৬ জন নদীর পাড়ে তাস খেলছিল। পুলিশ দেখে ওরা ভাবছে ওদের ধরতে আসছে, ভয়ে পালাতে গিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে মারা যায়।

দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ কমল কৃষ্ণ ধর জানান, বিএনপির ডাকা অবরোধে সহিংসতা রোধে এসআই নুরুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই এলাকায় দায়িত্বরত ছিল। শুনেছি নদীর পাড়ে কিছু লোকজন তাস খেলছিল। পুলিশ আসার সংবাদে ওরা পালাতে গিয়ে একজন অসুস্থ রোগী মারা গেছেন। পুলিশ তখন ওখানে কি ঘটেছিল তা জানত না, পরে জেনেছে, আমিও শুনেছি।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

দেবিদ্বারে জুয়া খেলার সময় পুলিশ দেখে পালাতে গিয়ে যুবলীগ কর্মীর মৃত্যু

আপডেট সময় ১১:৪২:১২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ নভেম্বর ২০২৩

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

কুমিল্লার দেবিদ্বারে জুয়া খেলার সময় পুলিশ দেখে পালাতে গিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে আক্কাস আলী (৫০) নামের এক যুবলীগ কর্মী নিহত হয়েছে। বুধবার বেলা আড়াইটার সময় ঘটনাটি ঘটে দেবিদ্বার উপজেলার ৬নং ফতেহাবাদ ইউনিয়নের চান্দপুর গ্রামের গোমতী নদীর বেড়িবাঁধের উপর।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার দুপুর আড়াইটার সময় চান্দপুর গ্রামের নায়েব আলীর পুত্র আক্কাস আলীসহ ৫-৬ জন জুয়া খেলছিলেন। এ সময় বিএনপি ডাকা ৭২ ঘণ্টা অবরোধের দ্বিতীয় দিনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা টহল পুলিশের একটি দল ওই এলাকায় প্রবেশ করলে খেলোয়াড়রা যার যার মতো পালাতে গিয়ে কেউ নদীতে ঝাঁপ দেন কেউবা পালিয়ে আত্মরক্ষার চেষ্টা চালায়। এ সময় আক্কাস আলী পালাতে গিয়ে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে অচেতন হয়ে পড়েন। তাকে দ্রুত দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে নিহত আক্কাস আলীর ভাই জানান, আমার ভাইসহ কয়েকজন বাড়ির পাশে গোমতী পাড়ে তাস খেলছিল, এ সময় পুলিশ দেখে পালাতে গিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে অচেতন হয়ে মারা যান। আমার ভাই এর আগে আরও দুবার স্ট্রোক করেছিলেন।

ফতেহাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান মাসুদ জানান, আক্কাস আলী যুবলীগের একজন কর্মী ছিলেন। তিনি অসুস্থ ছিলেন। এর আগে দুবার হার্টঅ্যাটাক করেছিল। তারা ৫-৬ জন নদীর পাড়ে তাস খেলছিল। পুলিশ দেখে ওরা ভাবছে ওদের ধরতে আসছে, ভয়ে পালাতে গিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে মারা যায়।

দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ কমল কৃষ্ণ ধর জানান, বিএনপির ডাকা অবরোধে সহিংসতা রোধে এসআই নুরুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই এলাকায় দায়িত্বরত ছিল। শুনেছি নদীর পাড়ে কিছু লোকজন তাস খেলছিল। পুলিশ আসার সংবাদে ওরা পালাতে গিয়ে একজন অসুস্থ রোগী মারা গেছেন। পুলিশ তখন ওখানে কি ঘটেছিল তা জানত না, পরে জেনেছে, আমিও শুনেছি।