ঢাকা ০৯:৩১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo রূপসায় ইটভাটার মাটিতে সড়ক বেহাল দশা : হালকা বৃষ্টিতে একের পর এক দূর্ঘটনা Logo জুয়েলারি খাতে আরোপিত শুল্ক হার কমানো ও আর্থিক প্রণোদনার প্রস্তাব বাজুসের Logo বাড়ির পাশে রাস্তার ঢালাই ঢালু হওয়ার অভিযোগে স্ত্রিকে কুপিয়ে জখম Logo দেবিদ্বারে ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক উন্নয়নের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন Logo বড়পুকুরিয়া কয়লাখনিতে স্থানীয়দের ক্ষতিপূরণের দাবি Logo রূপগঞ্জে পূর্বশত্রুতার জেরে দুই জনকে পিটিয়ে আহত : থানায় পাল্টা পাল্টি অভিযোগ Logo শিশুর খতনায় অতিরিক্ত রক্তপাত, উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারকে বদলি Logo বরুড়া উপজেলা যুব রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ১৫ সদস্যের কমিটি অনুমোদন Logo যশোরে ট্রাক ও মোটরসাইকেলে মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত -২, ঘাতক ট্রাক আটক Logo বনিকপাড়া’র বার্ষিক মহোৎসব শুরু
একই স্থানে ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীসভা

দেবীদ্বারে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ছাত্রলীগের কর্মীসভা অনু‌ষ্ঠিত

মো: সাইফুল ইসলাম, স্টাফ রি‌পোর্টার:
কুমিল্লার দেবীদ্বারে একই স্থানে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীসভা আহবান করায় শান্তিভঙ্গের আশংকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। শনিবার বিকাল ৩টার দিকে উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের ৪৬ নং চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে একই সময়ে সভা আহবান করায় সকাল থেকে সেখানে দুই গ্রুপে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এতে পৌনে ৩টার দিকে স্থানীয় প্রশাসন সেখানে ১৪৪ ধারা জারী করে। তবে বিকাল ৫ টার দিকে ছাত্রলীগ একই স্থানে তাদের পূর্ব নির্ধারিত কর্মীসভা করেছে।

দলীয় সূত্রে জানাযায়, দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের সমর্থক উপজেলা ছাত্রলীগ শনিবার বিকেলে চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক কর্মীসভা আহবান করে। অপর দিকে একই স্থানে একই সময়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের সমর্থক উপজেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে আরও একটি কর্মীসভা আহ্বান করে। এ নিয়ে বিকেলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় ছাত্রলীগের তৈরী মঞ্চ ও সভাস্থলের চেয়ার ভাংচুর করে যুবলীগ কর্মীরা। ওই ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিগার সুলতানা, দেবীদ্বার সার্কেল এএসপি আমিরুল্লাহ ও থানার অফিসার ইনচার্জ (সার্বিক) খাদিমুল বাহার আবেদ’র নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।
সংঘাত এড়াতে প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করলেও দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের সমর্থিত কয়েকশত ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে ওইস্থানে সভা পরিচালনা করেন।
দেবীদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসাদুর রহমান রনি বলেন, আমরা ২ দিন আগেই ওই স্থানে কর্মীসভা করার ঘোষণা করি। কিন্তু আমাদের কর্মীসভা প- করতে যুবলীগ হঠাৎ গত রাতে সেখানে সভা আহবান করে এবং আমাদের মঞ্চ ও চেয়ার ভাংচুর করে। ওরা সভা ভন্ডুল করতে ব্যর্থ হয়ে পিছু হটলে আমরা বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীর উপস্থিতিতে সভা করি।
এ ব্যাপরে স্থানীয় এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল সমর্থক যুবলীগ উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাসেম ওমানী জানান, শনিবার (২০ মে) বিকেল ৩টায় চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যাল মাঠে এক কর্মীসভা আহবান করেছিলাম, উপজেলা চেয়ারম্যান কালাম সমর্থকরা আমাদের কর্মীদের কর্মীসভাস্থলে জমায়েত হতে দেয়নি। তারা আমাদের লোকদেরকে স্কুল মাঠ থেকে বের করে দিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। ওরা এমপি সমর্থক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক চান্দপুর গ্রামের পরিমল শীলের বাড়ি ও ইউপি সদস্য যুবলীগ নেতা আশরাফ মেম্বারের বাড়ি ভাংচুর করে। প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করায় আমরা কর্মসূচী বাতিল করি। ওরা নিজেরা নিজেদের মঞ্চ ও চেয়ার ভাংচুর করে আমাদের উপর দোষ চাপাচ্ছে।
মো: আরেফিন ফয়সাল তুহিনের সভাপতিত্বে ছাত্র লীগের সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম আজাদ।
প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মো: সাইফুল ইসলাম রুবেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ৬নং ফতেহাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ কামরুজ্জামান মাসুদ, ৯নং গুনাইঘর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো: মোকবল হোসেন মুকুল, ৮নং জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো: জাহিদুল ইসলাম, দেবীদ্বার উপজেলা মৎস্যজীবি লীগ সাধারণ সম্পাদক মো: আনোয়ার হোসেন টিটু, মো: হুসাইন আহম্মেদ, মো: হাবিবুর রহমান, শয়ন দাস। বিশেষ বক্তা ছিলেনদেবীদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ আহ্বায়ক, মো: আসাদুর রহমান রনি।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দেবীদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক মো: গোলাম মহিউদ্দিন সবুজ, মো: গাজী আসিফ বিন লতিফ, মো: দিদারুল আলম ফয়েজ, মো: সরোয়ার হোসেন রাকিব, মো: ইমরান হোসেন ইমু, মো: আল আমিন যুগ্ম প্রমূখ।
এ ব্যাপারে দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) খাদেমুল বাহার আবেদ জানান, ছাত্রলীগ এবং যুবলীগ একই স্থানে একই সময়ে কর্মীসভা ডেকেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে ইউএনও সাহেবের নির্দেশে ঘটনাস্থল ১৪৪ ধারা জারি করি। ছাত্রলীগ বিশাল কর্মী বাহিনী নিয়ে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে সভা করেছে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

রূপসায় ইটভাটার মাটিতে সড়ক বেহাল দশা : হালকা বৃষ্টিতে একের পর এক দূর্ঘটনা

একই স্থানে ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীসভা

দেবীদ্বারে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ছাত্রলীগের কর্মীসভা অনু‌ষ্ঠিত

আপডেট সময় ০৪:৫৯:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ মে ২০২৩

মো: সাইফুল ইসলাম, স্টাফ রি‌পোর্টার:
কুমিল্লার দেবীদ্বারে একই স্থানে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীসভা আহবান করায় শান্তিভঙ্গের আশংকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। শনিবার বিকাল ৩টার দিকে উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের ৪৬ নং চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে একই সময়ে সভা আহবান করায় সকাল থেকে সেখানে দুই গ্রুপে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এতে পৌনে ৩টার দিকে স্থানীয় প্রশাসন সেখানে ১৪৪ ধারা জারী করে। তবে বিকাল ৫ টার দিকে ছাত্রলীগ একই স্থানে তাদের পূর্ব নির্ধারিত কর্মীসভা করেছে।

দলীয় সূত্রে জানাযায়, দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের সমর্থক উপজেলা ছাত্রলীগ শনিবার বিকেলে চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক কর্মীসভা আহবান করে। অপর দিকে একই স্থানে একই সময়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের সমর্থক উপজেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে আরও একটি কর্মীসভা আহ্বান করে। এ নিয়ে বিকেলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় ছাত্রলীগের তৈরী মঞ্চ ও সভাস্থলের চেয়ার ভাংচুর করে যুবলীগ কর্মীরা। ওই ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিগার সুলতানা, দেবীদ্বার সার্কেল এএসপি আমিরুল্লাহ ও থানার অফিসার ইনচার্জ (সার্বিক) খাদিমুল বাহার আবেদ’র নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।
সংঘাত এড়াতে প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করলেও দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের সমর্থিত কয়েকশত ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে ওইস্থানে সভা পরিচালনা করেন।
দেবীদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসাদুর রহমান রনি বলেন, আমরা ২ দিন আগেই ওই স্থানে কর্মীসভা করার ঘোষণা করি। কিন্তু আমাদের কর্মীসভা প- করতে যুবলীগ হঠাৎ গত রাতে সেখানে সভা আহবান করে এবং আমাদের মঞ্চ ও চেয়ার ভাংচুর করে। ওরা সভা ভন্ডুল করতে ব্যর্থ হয়ে পিছু হটলে আমরা বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীর উপস্থিতিতে সভা করি।
এ ব্যাপরে স্থানীয় এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল সমর্থক যুবলীগ উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাসেম ওমানী জানান, শনিবার (২০ মে) বিকেল ৩টায় চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যাল মাঠে এক কর্মীসভা আহবান করেছিলাম, উপজেলা চেয়ারম্যান কালাম সমর্থকরা আমাদের কর্মীদের কর্মীসভাস্থলে জমায়েত হতে দেয়নি। তারা আমাদের লোকদেরকে স্কুল মাঠ থেকে বের করে দিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। ওরা এমপি সমর্থক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক চান্দপুর গ্রামের পরিমল শীলের বাড়ি ও ইউপি সদস্য যুবলীগ নেতা আশরাফ মেম্বারের বাড়ি ভাংচুর করে। প্রশাসন সভাস্থলে ১৪৪ ধারা জারি করায় আমরা কর্মসূচী বাতিল করি। ওরা নিজেরা নিজেদের মঞ্চ ও চেয়ার ভাংচুর করে আমাদের উপর দোষ চাপাচ্ছে।
মো: আরেফিন ফয়সাল তুহিনের সভাপতিত্বে ছাত্র লীগের সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম আজাদ।
প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মো: সাইফুল ইসলাম রুবেল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ৬নং ফতেহাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ কামরুজ্জামান মাসুদ, ৯নং গুনাইঘর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো: মোকবল হোসেন মুকুল, ৮নং জাফরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো: জাহিদুল ইসলাম, দেবীদ্বার উপজেলা মৎস্যজীবি লীগ সাধারণ সম্পাদক মো: আনোয়ার হোসেন টিটু, মো: হুসাইন আহম্মেদ, মো: হাবিবুর রহমান, শয়ন দাস। বিশেষ বক্তা ছিলেনদেবীদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ আহ্বায়ক, মো: আসাদুর রহমান রনি।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দেবীদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক মো: গোলাম মহিউদ্দিন সবুজ, মো: গাজী আসিফ বিন লতিফ, মো: দিদারুল আলম ফয়েজ, মো: সরোয়ার হোসেন রাকিব, মো: ইমরান হোসেন ইমু, মো: আল আমিন যুগ্ম প্রমূখ।
এ ব্যাপারে দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) খাদেমুল বাহার আবেদ জানান, ছাত্রলীগ এবং যুবলীগ একই স্থানে একই সময়ে কর্মীসভা ডেকেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে ইউএনও সাহেবের নির্দেশে ঘটনাস্থল ১৪৪ ধারা জারি করি। ছাত্রলীগ বিশাল কর্মী বাহিনী নিয়ে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে সভা করেছে।