ঢাকা ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাগেরহাটে ঘুমন্ত বাবা-মায়ের কোল থেকে চুরি যাওয়া শিশুটি উদ্ধার

বাগেরহাটের ফকিরহাটে কৃষক দম্পত্তির ঘর থেকে চুরি হওয়া আমার নাকের বাটকাটা দিবি তিন মাস বয়সী শিশু সন্তান সাজিদ ফরাজীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৭ মার্চ) গভীর রাতে খুলনা শহরের মিয়াপাড়া এলাকায় দারুল উলুম মস‌জি‌দের সি‌ড়ি‌তে একটি ব্যাগ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পরে শিশুটিকে উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে খুলনা সদর থানা পুলিশ। এর আগে শুক্রবার (১৭ মার্চ) ভোরে উপজেলার জাড়িয়া-মাইট কুমড়া এলাকায় আবু সাঈদ ফরাজী ও সুমি খাতুন দম্পত্তির ঘরে এই চুরির ঘটনা ঘটে।
উদ্ধার হওয়া শিশু সাজিদ ফরাজী ওই এলাকার কৃষক আবু সাঈদ ফরাজী ও সুমি খাতুন দম্পত্তির ছেলে। সাঈদ-সুমির সাদিয়া নামের পাঁচ বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে।
সন্তানকে ফিরে পেয়ে খুশি বাবা-মাসহ এলাকাবাসী। তবে সন্তান চুরির সাথে জড়িতদের শনাক্ত এবং আটক করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।
শিশু সাজিদের মা সুমি খাতুন বলেন, মনে হচ্ছিল আমার বুকের মধ্যে কি যেন নেই। পরানডা এখনই বের হয়ে যাবে। সারাদিন শুধু খাখা করেছে আমার বুক। আমার বাজানকে পেয়ে মনে হচ্ছে আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছি। সব কষ্ট ভুলে গেছি।
শিশুটির বাবা কৃষক আবু সাঈদ ফরাজী বলেন, আমার সন্তানকে ফিরে পেয়েছি এটাই শান্তি। তবে চুরির সাথে যারা জড়িত তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান এই বাবা।
বাগেরহাট জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের প্রধান সমন্বয়ক পুলিশ পরিদর্শক এস এম আশরাফুল আলম বলেন, শিশু চুরির খবর পাওয়ার পর থেকে পুলিশ অভিযান শুরু করে। পুলিশের কঠোর তৎপরতায় অপরাধীরা শিশুটিকে ফেলে রেখে চলে যায়। আমরা শিশুটিকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। চুরির সাথে জড়িতদের শনাক্ত ও আইনের আওতায় আনতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

বাগেরহাটে ঘুমন্ত বাবা-মায়ের কোল থেকে চুরি যাওয়া শিশুটি উদ্ধার

আপডেট সময় ১০:৩০:২১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মার্চ ২০২৩

বাগেরহাটের ফকিরহাটে কৃষক দম্পত্তির ঘর থেকে চুরি হওয়া আমার নাকের বাটকাটা দিবি তিন মাস বয়সী শিশু সন্তান সাজিদ ফরাজীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৭ মার্চ) গভীর রাতে খুলনা শহরের মিয়াপাড়া এলাকায় দারুল উলুম মস‌জি‌দের সি‌ড়ি‌তে একটি ব্যাগ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পরে শিশুটিকে উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে খুলনা সদর থানা পুলিশ। এর আগে শুক্রবার (১৭ মার্চ) ভোরে উপজেলার জাড়িয়া-মাইট কুমড়া এলাকায় আবু সাঈদ ফরাজী ও সুমি খাতুন দম্পত্তির ঘরে এই চুরির ঘটনা ঘটে।
উদ্ধার হওয়া শিশু সাজিদ ফরাজী ওই এলাকার কৃষক আবু সাঈদ ফরাজী ও সুমি খাতুন দম্পত্তির ছেলে। সাঈদ-সুমির সাদিয়া নামের পাঁচ বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে।
সন্তানকে ফিরে পেয়ে খুশি বাবা-মাসহ এলাকাবাসী। তবে সন্তান চুরির সাথে জড়িতদের শনাক্ত এবং আটক করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।
শিশু সাজিদের মা সুমি খাতুন বলেন, মনে হচ্ছিল আমার বুকের মধ্যে কি যেন নেই। পরানডা এখনই বের হয়ে যাবে। সারাদিন শুধু খাখা করেছে আমার বুক। আমার বাজানকে পেয়ে মনে হচ্ছে আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছি। সব কষ্ট ভুলে গেছি।
শিশুটির বাবা কৃষক আবু সাঈদ ফরাজী বলেন, আমার সন্তানকে ফিরে পেয়েছি এটাই শান্তি। তবে চুরির সাথে যারা জড়িত তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান এই বাবা।
বাগেরহাট জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের প্রধান সমন্বয়ক পুলিশ পরিদর্শক এস এম আশরাফুল আলম বলেন, শিশু চুরির খবর পাওয়ার পর থেকে পুলিশ অভিযান শুরু করে। পুলিশের কঠোর তৎপরতায় অপরাধীরা শিশুটিকে ফেলে রেখে চলে যায়। আমরা শিশুটিকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। চুরির সাথে জড়িতদের শনাক্ত ও আইনের আওতায় আনতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।