ঢাকা ০৫:০০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যশোরে যৌতুক মামলায় দুইজনকে তিন বছরের সশ্রম কারাদন্ড

  • যশোর প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় ০৪:৫১:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩
  • ১১৩ বার পড়া হয়েছে

যশোরে যৌতুক মামলায় দুইজনকে তিন বছর করে সশ্রম কারাদন্ড ও অর্থদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো, যশোরের ঝিকরগাছার মৌতা গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে তরিকুল ইসলাম ও ঝিনাইদহ মহেশপুরের পার গোপালপুর গ্রামের লিয়াতক আলীর ছেলে টিটো মিয়া।

গতকাল সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শম্পা বসু আলাদা রায়ে এ সাজা দিয়েছেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ১ অক্টোবর আসামি তরিকুল ইসরাম শার্শার শুড়া গ্রামের সোহরাব হোসেনের মেয়ে রোকিয়া খাতুনকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তরিকুলকে সোনার আংটিসহ সংসারের যাবতীয় মালামাল দেয়া হয়। কয়েক মাস যেতে না যেতে তরিকুল বিদেশে যাবে ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে স্ত্রীর উপর শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করেন। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রোকিয়া খাতুন যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় তার স্বামী তাকে পিতার বাড়ি তাড়িয়ে দেন। ২৩ অক্টোবর বিষয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক বিরোধ আইনে মামলা করেন। দীর্ঘ সাক্ষী গ্রহণ শেষে আসামি তরিকুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে ৩ বছর সশ্রম কারাদ-, ৩ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৩ মাসের কারাদ-ের আদেশ দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত তরিকুল ইসলাম পলাতক আছে।

আপলোডকারীর তথ্য

যশোরে যৌতুক মামলায় দুইজনকে তিন বছরের সশ্রম কারাদন্ড

আপডেট সময় ০৪:৫১:৫০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩

যশোরে যৌতুক মামলায় দুইজনকে তিন বছর করে সশ্রম কারাদন্ড ও অর্থদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত।

দন্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো, যশোরের ঝিকরগাছার মৌতা গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে তরিকুল ইসলাম ও ঝিনাইদহ মহেশপুরের পার গোপালপুর গ্রামের লিয়াতক আলীর ছেলে টিটো মিয়া।

গতকাল সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শম্পা বসু আলাদা রায়ে এ সাজা দিয়েছেন।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, ২০১৯ সালের ১ অক্টোবর আসামি তরিকুল ইসরাম শার্শার শুড়া গ্রামের সোহরাব হোসেনের মেয়ে রোকিয়া খাতুনকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তরিকুলকে সোনার আংটিসহ সংসারের যাবতীয় মালামাল দেয়া হয়। কয়েক মাস যেতে না যেতে তরিকুল বিদেশে যাবে ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে স্ত্রীর উপর শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করেন। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রোকিয়া খাতুন যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় তার স্বামী তাকে পিতার বাড়ি তাড়িয়ে দেন। ২৩ অক্টোবর বিষয়টি মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে তিনি আদালতে স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক বিরোধ আইনে মামলা করেন। দীর্ঘ সাক্ষী গ্রহণ শেষে আসামি তরিকুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাকে ৩ বছর সশ্রম কারাদ-, ৩ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৩ মাসের কারাদ-ের আদেশ দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত তরিকুল ইসলাম পলাতক আছে।