ঢাকা ০৮:৫০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিদায় ও বরন অনুষ্ঠিত Logo প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল-জয়দেবপুর থানার ওসির কান্ড! Logo রাজউক আইন ভঙ্গ করে বহুতল ভবন/মার্কেট নির্মাণ (পর্ব-২) Logo বড় ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে দুই ভাইয়ের মৃত্যু Logo ঘূর্ণিঝড় রেমাল’র প্রস্তুতি পর্যবেক্ষণে দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী মুহিব Logo সাদুল্লাপুরে ১০কেজি শুকনো গাঁজাসহ দুইজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo এমপি আনারের মাংস কেটে কিমা করা কসাই জিহাদের ১২ দিনের রিমান্ড Logo চাকরি গেলেও কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা করতেন শাহারুল Logo বাঘাইছড়ি ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত Logo ঝিনাইদহে দুই মহিলার গলা কেটে দুই লক্ষ টাকা ছিনতাই

লাকসামে পাওনা টাকা চাওয়ায় হামলা : আহত-৩

পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে লাকসামে দুই ব্যবসায়ীর মাঝে সংঘর্ষে অন্তত ৩ আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে গুরুতর অবস্থায় আবুল বাশার চোটন (৩৫) কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
রবিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ১২টায় লাকসাম রেলওয়ে জংশন বাজারে এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় ইয়াকুব আলী সুমন বাদী হয়ে স্থানীয় হোটেল ব্যবসায়ী শফিকুর রহমান ও তার দুই ছেলে রকি ও রনি’র বিরুদ্ধে রবিবার বিকালে লাকসাম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, লাকসাম পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড রেলওয়ে জংশন বাজারে মুরগী ব্যবসা করতেন ইয়াকুব আলী। ওই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৩/৪ বছর ধরে
নগদ/বাকীতে মুরগী ক্রয় করতেন একই বাজারে আজমির হোটেলের মালিক সফিকুর রহমান। ওই হোটেল মালিকের কাছে মুরগীর বকেয়া ৩০ হাজার টাকা পাওনা মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব আলী। রবিবার মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব ও আবুল বাশার চোটন সকালে আজমির হোটেল মালিকের কাছে সেই টাকা চাওয়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।
এসময় হোটেল ব্যবসায়ি শফিকুর রহমানের ছেলে রকি ও রনি দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব ও তার ভাই আবুল বাশার চোটনকে বেদম মারধর দিয়ে গুরুতর আহত করে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত সফিকুর রহমান বলেন, মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব আমার কাছে টাকা পাবে এটা সত্যি কথা। সকালে মুরগীর জন্য গেলে সে আমার সন্তানদেরকে খারাপ গালিগালাজ করে। বিষয়টি শুনে আমি আসার পূর্বে চোটন ও ইয়াকুব আমি এবং আমার ছেলেদের মারধর করে। সেখানে আমি জ্ঞান হারালে স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে বাদী সুমন বলেন, দীর্ঘদিন ধরে শফিকুর রহমান আমাদের দোকান থেকে মুরগী বাকী নগদে হোটেলের জন্য ক্রয় করে নিতো। বিগত কয়েক মাসের প্রায় ৩০ হাজার টাকা দিচ্ছে না। আজ পাওনা টাকা চাওয়ায় শফিকুর রহমান ও তার দুই ছেলে রনি ও রকি দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের দুই ভাইকে এলোপাতাড়ি মারধর করে আহত করে। আনার ভাই চোটনের একটি চোখ উপড়ে ফেলার চেষ্টা করে, বর্তমানে সে গুরুতর আহত হয়ে কুমিল্লা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মেজবাহ উদ্দিন ভুইঁয়া বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিদায় ও বরন অনুষ্ঠিত

লাকসামে পাওনা টাকা চাওয়ায় হামলা : আহত-৩

আপডেট সময় ১১:১০:৫৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে লাকসামে দুই ব্যবসায়ীর মাঝে সংঘর্ষে অন্তত ৩ আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে গুরুতর অবস্থায় আবুল বাশার চোটন (৩৫) কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
রবিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ১২টায় লাকসাম রেলওয়ে জংশন বাজারে এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় ইয়াকুব আলী সুমন বাদী হয়ে স্থানীয় হোটেল ব্যবসায়ী শফিকুর রহমান ও তার দুই ছেলে রকি ও রনি’র বিরুদ্ধে রবিবার বিকালে লাকসাম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, লাকসাম পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড রেলওয়ে জংশন বাজারে মুরগী ব্যবসা করতেন ইয়াকুব আলী। ওই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৩/৪ বছর ধরে
নগদ/বাকীতে মুরগী ক্রয় করতেন একই বাজারে আজমির হোটেলের মালিক সফিকুর রহমান। ওই হোটেল মালিকের কাছে মুরগীর বকেয়া ৩০ হাজার টাকা পাওনা মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব আলী। রবিবার মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব ও আবুল বাশার চোটন সকালে আজমির হোটেল মালিকের কাছে সেই টাকা চাওয়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।
এসময় হোটেল ব্যবসায়ি শফিকুর রহমানের ছেলে রকি ও রনি দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব ও তার ভাই আবুল বাশার চোটনকে বেদম মারধর দিয়ে গুরুতর আহত করে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত সফিকুর রহমান বলেন, মুরগী ব্যবসায়ী ইয়াকুব আমার কাছে টাকা পাবে এটা সত্যি কথা। সকালে মুরগীর জন্য গেলে সে আমার সন্তানদেরকে খারাপ গালিগালাজ করে। বিষয়টি শুনে আমি আসার পূর্বে চোটন ও ইয়াকুব আমি এবং আমার ছেলেদের মারধর করে। সেখানে আমি জ্ঞান হারালে স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে বাদী সুমন বলেন, দীর্ঘদিন ধরে শফিকুর রহমান আমাদের দোকান থেকে মুরগী বাকী নগদে হোটেলের জন্য ক্রয় করে নিতো। বিগত কয়েক মাসের প্রায় ৩০ হাজার টাকা দিচ্ছে না। আজ পাওনা টাকা চাওয়ায় শফিকুর রহমান ও তার দুই ছেলে রনি ও রকি দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের দুই ভাইকে এলোপাতাড়ি মারধর করে আহত করে। আনার ভাই চোটনের একটি চোখ উপড়ে ফেলার চেষ্টা করে, বর্তমানে সে গুরুতর আহত হয়ে কুমিল্লা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মেজবাহ উদ্দিন ভুইঁয়া বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।