ঢাকা ০৩:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সাজেকে ৩টি এসবিপি বন্দুকসহ একজন আটক

বাঘাইছড়ি (রাঙ্গামাটি) প্রতিনিধিঃ রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের দুর্গম সুকনাছড়া এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৩ টি এসবিপি বন্দুক সহ রনি চাকমা (২৫) নামে অস্ত্র পাচারকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করা হয়েছে। আটক রনি চাকমা বরকল উপজেলার সুবলং এলাকার মতিলাল চাকমার ছেলে বলে জানিয়েছে পুলিশ । সাজেক থানার ওসি নুরুল আলম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন ২৪ জানুয়ারী মঙ্গলবার গোপন সংবাদ পেয়ে সন্ধা ৭ ঘটিকায় সাজেক থানার সার্কেল এএসপি আবদুল আওয়াল এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি বিশেষ দল অস্ত্র পাচারের খবর পেয়ে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকে এসময় বস্তায় মোড়ানো ৩ টি বন্দুক ও একটি ব্যাগসহ রনি চাকমা এগিয়ে আসলে পুলিশ তাকে থামার সংকেত দিলে সে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ তার পিছু নিয়ে ঝাপটে ধরে। এসময় সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি আবদুল আওয়াল) কিছুটা আঘাত পান বলে জানাযায়।
অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া পুলিশ কর্মকর্তা এএসপি আবদুল আওয়াল বলেন ইদানীং পাহাড়ে জঙ্গি গোষ্ঠী ও বিভিন্ন সন্ত্রাসী সংগঠনের আনাগোনা বেড়েছে তাই পুলিশের পক্ষ থেকে নজড়ধারী বাড়ানো হয়েছে। আটক রনি চাকমা প্রাথমিক জিজ্ঞেসাবাদে অস্ত্র চোরাকারবারি দলের সদস্য বলে জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে আগামীকাল সকালে আদালতে পাঠানো হবে। সাজেকে জনসাধারণের জানমালের নিরাপত্তার জন্য পুলিশের অভিযান নিয়মিত চলবে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাজেকে ৩টি এসবিপি বন্দুকসহ একজন আটক

আপডেট সময় ০৪:৩৩:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৩

বাঘাইছড়ি (রাঙ্গামাটি) প্রতিনিধিঃ রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের দুর্গম সুকনাছড়া এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৩ টি এসবিপি বন্দুক সহ রনি চাকমা (২৫) নামে অস্ত্র পাচারকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করা হয়েছে। আটক রনি চাকমা বরকল উপজেলার সুবলং এলাকার মতিলাল চাকমার ছেলে বলে জানিয়েছে পুলিশ । সাজেক থানার ওসি নুরুল আলম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন ২৪ জানুয়ারী মঙ্গলবার গোপন সংবাদ পেয়ে সন্ধা ৭ ঘটিকায় সাজেক থানার সার্কেল এএসপি আবদুল আওয়াল এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি বিশেষ দল অস্ত্র পাচারের খবর পেয়ে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকে এসময় বস্তায় মোড়ানো ৩ টি বন্দুক ও একটি ব্যাগসহ রনি চাকমা এগিয়ে আসলে পুলিশ তাকে থামার সংকেত দিলে সে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ তার পিছু নিয়ে ঝাপটে ধরে। এসময় সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি আবদুল আওয়াল) কিছুটা আঘাত পান বলে জানাযায়।
অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া পুলিশ কর্মকর্তা এএসপি আবদুল আওয়াল বলেন ইদানীং পাহাড়ে জঙ্গি গোষ্ঠী ও বিভিন্ন সন্ত্রাসী সংগঠনের আনাগোনা বেড়েছে তাই পুলিশের পক্ষ থেকে নজড়ধারী বাড়ানো হয়েছে। আটক রনি চাকমা প্রাথমিক জিজ্ঞেসাবাদে অস্ত্র চোরাকারবারি দলের সদস্য বলে জানিয়েছেন এই কর্মকর্তা। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে আগামীকাল সকালে আদালতে পাঠানো হবে। সাজেকে জনসাধারণের জানমালের নিরাপত্তার জন্য পুলিশের অভিযান নিয়মিত চলবে।