ঢাকা ১১:৪৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাম্প্রদায়িকতা দিয়ে রাজনৈতিক সমাধান হয় না: মির্জা ফখরুল

পঞ্চগড়ের কাদিয়ানি হামলার ঘটনায় সরকার সরাসরি জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, অনির্বাচিত সরকারকে বলতে চাই সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টি করে কখনো রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান করা যায় না।

সোমবার (১৩ মার্চ) সকালে ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়ির নিজ বাসভবনে বর্ধিত সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বিএনপির দুই সংসদ সদস্যের ফেসবুক পেইজ থেকে কাদিয়ানী হামলার উস্কানি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে- গণমাধ্যমকর্মীরা বিষয়টি তুললে জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ও হারুনুর রশিদ অত্যন্ত দায়িত্বশীল নেতা। তারা তাদের ফেসবুক পেজ থেকে এমন পোস্ট দেবে দেশের মানুষ বিশ্বাস করে না। এটার একমাত্র উদ্দেশ্য তাদের ব্যক্তিগত ইমেজ খর্ব করা। গোটা বিষয়টাকে ভিন্ন খাতে ঘটনার আসল আসামিদের বাঁচানোর চেষ্টা।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে নির্বাচন ব্যবস্থা পুরোপুরি ভেঙে গেছে। ১৮ সালের নির্বাচনের মতো তারা এবারও একই নির্বাচন করতে চায়। দেশের মানুষ জেগে উঠেছে এবার আর সে নির্বাচন হতে দেবে না।

সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান, সহসভাপতি আবদুল্লাহ মাসুদ, মহিলা দলের সভানেত্রী ফোরাতুন নাহার প্যারিসসহ আরও অনেকেই।

আপলোডকারীর তথ্য

সাম্প্রদায়িকতা দিয়ে রাজনৈতিক সমাধান হয় না: মির্জা ফখরুল

আপডেট সময় ০৮:২৩:০৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

পঞ্চগড়ের কাদিয়ানি হামলার ঘটনায় সরকার সরাসরি জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, অনির্বাচিত সরকারকে বলতে চাই সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টি করে কখনো রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান করা যায় না।

সোমবার (১৩ মার্চ) সকালে ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়ির নিজ বাসভবনে বর্ধিত সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

বিএনপির দুই সংসদ সদস্যের ফেসবুক পেইজ থেকে কাদিয়ানী হামলার উস্কানি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে- গণমাধ্যমকর্মীরা বিষয়টি তুললে জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা ও হারুনুর রশিদ অত্যন্ত দায়িত্বশীল নেতা। তারা তাদের ফেসবুক পেজ থেকে এমন পোস্ট দেবে দেশের মানুষ বিশ্বাস করে না। এটার একমাত্র উদ্দেশ্য তাদের ব্যক্তিগত ইমেজ খর্ব করা। গোটা বিষয়টাকে ভিন্ন খাতে ঘটনার আসল আসামিদের বাঁচানোর চেষ্টা।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে নির্বাচন ব্যবস্থা পুরোপুরি ভেঙে গেছে। ১৮ সালের নির্বাচনের মতো তারা এবারও একই নির্বাচন করতে চায়। দেশের মানুষ জেগে উঠেছে এবার আর সে নির্বাচন হতে দেবে না।

সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈমুর রহমান, সহসভাপতি আবদুল্লাহ মাসুদ, মহিলা দলের সভানেত্রী ফোরাতুন নাহার প্যারিসসহ আরও অনেকেই।