ঢাকা ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দই চিড়া দিয়ে শুরু হোক ইফতার

গরমের ঠাণ্ডা সমাধান দই চিড়া। সারাদিনের রোজার পর শরীরের কোষগুলো উজ্জীবিত করে দই। এর ফলে হজম সহজ হয় এবং পেটে গ্যাস হয় না। অন্যদিকে চিড়ার শর্করা শরীর ঠাণ্ডা রাখে এবং শক্তি সরবরাহ করে। এক্ষেত্রে মিষ্টি দইয়ের চেয়ে টক দই বেশি ভালো হবে।ইফতারের শুরুতে দই চিড়া খেলে বদহজম ও পেট জ্বালা প্রতিরোধ করা সম্ভব। এজন্য অনেকেই ইফতারে দই চিড়া খেয়ে থাকেন। তবে গতানুগতিক দই চিড়ার স্বাদ একঘেয়ামি মনে হলে ট্রাই করতে পারেন এই রেসিপি।

উপকরণ-

টক দই (২ কাপ), চিড়া (১/২ কাপ), পাকা কলা (স্কয়ার করে কাটা ১টি), পাকা আম (স্কয়ার করে কাটা ১টি), নারকেল কোরানো (১/২ কাপ), লেবুর রস (১/২ চা-চামচ), লবণ (না হলেও চলবে), মাওয়া (১ টেবিল চামচ), এলাচি গুড়া (১/৪ চা চামচ), কিশমিশ (১ টেবিল চামচ)।

প্রস্তুত প্রণালী-
প্রথমে চিড়া ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। এরপর বাটিতে টকদই, চিনি ও লবণ দিয়ে ভালোভাবে ফেটে নিতে হবে। ফেটানো দইয়ে চিড়া মেখে ফ্রিজে রাখুন। এক ঘণ্টা পর ফ্রিজ থেকে বের করে নারকেল মিশিয়ে আবার ফ্রিজে রাখতে হবে।
খাওয়ার কিছুক্ষণ আগে আম, কলা, এলাচি গুঁড়া ও কিশমিশ ভালভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। সবার শেষে মাওয়া ছিটিয়ে উপভোগ করুন ঠাণ্ডা দই চিড়া।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

দই চিড়া দিয়ে শুরু হোক ইফতার

আপডেট সময় ০২:৪২:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ এপ্রিল ২০২৩

গরমের ঠাণ্ডা সমাধান দই চিড়া। সারাদিনের রোজার পর শরীরের কোষগুলো উজ্জীবিত করে দই। এর ফলে হজম সহজ হয় এবং পেটে গ্যাস হয় না। অন্যদিকে চিড়ার শর্করা শরীর ঠাণ্ডা রাখে এবং শক্তি সরবরাহ করে। এক্ষেত্রে মিষ্টি দইয়ের চেয়ে টক দই বেশি ভালো হবে।ইফতারের শুরুতে দই চিড়া খেলে বদহজম ও পেট জ্বালা প্রতিরোধ করা সম্ভব। এজন্য অনেকেই ইফতারে দই চিড়া খেয়ে থাকেন। তবে গতানুগতিক দই চিড়ার স্বাদ একঘেয়ামি মনে হলে ট্রাই করতে পারেন এই রেসিপি।

উপকরণ-

টক দই (২ কাপ), চিড়া (১/২ কাপ), পাকা কলা (স্কয়ার করে কাটা ১টি), পাকা আম (স্কয়ার করে কাটা ১টি), নারকেল কোরানো (১/২ কাপ), লেবুর রস (১/২ চা-চামচ), লবণ (না হলেও চলবে), মাওয়া (১ টেবিল চামচ), এলাচি গুড়া (১/৪ চা চামচ), কিশমিশ (১ টেবিল চামচ)।

প্রস্তুত প্রণালী-
প্রথমে চিড়া ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। এরপর বাটিতে টকদই, চিনি ও লবণ দিয়ে ভালোভাবে ফেটে নিতে হবে। ফেটানো দইয়ে চিড়া মেখে ফ্রিজে রাখুন। এক ঘণ্টা পর ফ্রিজ থেকে বের করে নারকেল মিশিয়ে আবার ফ্রিজে রাখতে হবে।
খাওয়ার কিছুক্ষণ আগে আম, কলা, এলাচি গুঁড়া ও কিশমিশ ভালভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। সবার শেষে মাওয়া ছিটিয়ে উপভোগ করুন ঠাণ্ডা দই চিড়া।