ঢাকা ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইসলামের সাথে জঙ্গিবাদের দূরতম সম্পর্ক নেই-আমির হোসেন আমু

স্টাফ রিপোর্টারঃ ১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী বীর মুক্তিযুদ্ধা আলহাজ আমির হোসেন আমু বলেছেন-ইসলামের সাথে জঙ্গিবাদের দূরতম সম্পর্ক নেই। ইসলামের খোলসে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে যারা জড়িত হয়ে আস্ফালন করছে তারা দেশ ও জাতির শত্রæ। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমৃদ্ধ একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে দেশব্যাপী প্রতিষ্ঠিত। তিনি ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের সামগ্রিক কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান জাতীয় নেতা পীরে তরিকত আল্লামা ছৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী বলেছেন- আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্রমাগত রাজনৈতিক অঙ্গন সহিংস হয়ে উঠছে। রাজনীতিকদের পারস্পরিক বাকযুদ্ধ জাতীয় জীবনে উত্থাপ ছড়াচ্ছে প্রতিনিয়ত। ফলে আতংক ও শংকা ভর করছে জনমনে। এমনিতর পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে নির্বাচনী পরিবেশ বিঘিœত হবে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন- রাজনীতিতে সুস্থধারা ফিরিয়ে আনতে হলে অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের কোন বিকল্প নেই। আর এ জন্য নির্বাচন কমিশনকে সর্বপ্রকার অশুভ প্রভাব ও যে কোন নেতিবাচক চাপের উর্ধ্বে উঠে সামগ্রিক কাজ আঞ্জাম দিতে হবে। পাশাপাশি সকল অংশীজনদের স্বীয় দায়বদ্ধতাকে অগ্রাধিকার দিয়ে মুক্তমনে সহযোগিতার হস্ত প্রসারিত করতে হবে। অন্যথায় জাতীয় স্বার্থ উপেক্ষিত হওয়া ছাড়াও লক্ষ্যভ্রষ্ট হবে রাজনীতি। সংগঠনের মহাসচিব অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদীন জুবাইর বলেছেন- গোটা বিশ্ব এখন অশুভ মন্দায় কবলিত। দীর্ঘদিন ধরে রাশিয়া- ইউক্রেন যুদ্ধের অশুভ প্রভাব বিশ্বের অপরাপর দেশের ন্যায় বাংলাদেশকেও বিশাল এক কঠিন সমস্যার মুখোমুখি দাঁড় করেছে। জ্বালানী সংকট, ডলারের মূল্য বৃদ্ধি, রিজার্ভ এর অপ্রতুলতা, মূল্যস্ফীতির নেতিবাচক প্রভাব, বেকারতœ, নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি, খাদ্য সংকটসহ ইত্যাকার বিষয়াদি জনজীবনে এক দুঃসহ পরিস্থিতি বিরাজ করছে। অতএব, একবিংশ শতাব্দীর এহেন কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আজকের কাউন্সিলে করিৎকর্মাদের নিয়ে দক্ষ, যোগ্য ও সময়োপযোগী নেতৃত্ব গড়ে তুলতে হবে। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর উদ্যোগে অদ্য ৩১ ডিসেম্বর ২২ ঢাকা ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে বক্তারা উপরোক্ত মন্তব্য করেন। সংগঠনের চেয়ারম্যান পীরে তরিকত আল্লামা ছৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় কাউন্সিলে প্রথম অধিবেশনে প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনঃ- ১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী বীর মুক্তিযুদ্ধা আলহাজ আমির হোসেন আমু, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনঃ- ওয়াকার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- পীরে তরিকত আল্লামা নাছেরুল হক চিশতী, ডঃ আল্লামা কফিল উদ্দীন সরকার সালেহী, ডঃ আল্লামা মাহবুবুর রহমান, অধ্যক্ষ আল্লামা এস এম ফরিদ উদ্দীন, মাওলানা কাজী জসিম উদ্দিন, মাওলানা পীরে তরিকত আবু হানিফ মধুপুরী, পীরে তরিকত আল্লামা মোশাররফ হোসেন হেলালী, পীরে তরিকত আল্লামা খাজা আরিফুর রহমান তাহেরী, আল্লামা মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদী, শাহজাদা ছৈয়দ মাহমুদ শাহ মোজদ্দেদী,এডভোকেট একরামুল হক, পীরে তরিকত মাওলানা নাজমুল হক আখন্দ,পীরে তরিকত আল্লামা হাবিবুল্লাহ আল কাদেরী, কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির সচিব স ম হামেদ হোসাইন ও দপ্তর সম্পাদক মাওলানা মনির হোসাইন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে উপস্থিত ছিলেন – এইচ এম মুজিবুল হক শাকুর, অধ্যাপক ছৈয়দ হাফেজ আহমদ, অধ্যক্ষ মাওলানা জসিম উদ্দিন তৈয়বী, মোহাম্মদ মনির হোসেন, আলহাজ্ব মাওলানা ওয়াহেদ মুরাদ, মাওলানা এ এম মঈনউদ্দীন চৌধুরী হালিম, এ বি এম আরাফাত মোল্লা ও ফরিদ মজুমদার। প্রথম অধিবেশন শেষে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার দাবীতে এক বিশাল গণমিছিল ঢাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে

আপলোডকারীর তথ্য

ইসলামের সাথে জঙ্গিবাদের দূরতম সম্পর্ক নেই-আমির হোসেন আমু

আপডেট সময় ১১:১৯:৫১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২

স্টাফ রিপোর্টারঃ ১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী বীর মুক্তিযুদ্ধা আলহাজ আমির হোসেন আমু বলেছেন-ইসলামের সাথে জঙ্গিবাদের দূরতম সম্পর্ক নেই। ইসলামের খোলসে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে যারা জড়িত হয়ে আস্ফালন করছে তারা দেশ ও জাতির শত্রæ। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমৃদ্ধ একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে দেশব্যাপী প্রতিষ্ঠিত। তিনি ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের সামগ্রিক কর্মকান্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান জাতীয় নেতা পীরে তরিকত আল্লামা ছৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী বলেছেন- আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্রমাগত রাজনৈতিক অঙ্গন সহিংস হয়ে উঠছে। রাজনীতিকদের পারস্পরিক বাকযুদ্ধ জাতীয় জীবনে উত্থাপ ছড়াচ্ছে প্রতিনিয়ত। ফলে আতংক ও শংকা ভর করছে জনমনে। এমনিতর পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে নির্বাচনী পরিবেশ বিঘিœত হবে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন- রাজনীতিতে সুস্থধারা ফিরিয়ে আনতে হলে অবাধ, সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের কোন বিকল্প নেই। আর এ জন্য নির্বাচন কমিশনকে সর্বপ্রকার অশুভ প্রভাব ও যে কোন নেতিবাচক চাপের উর্ধ্বে উঠে সামগ্রিক কাজ আঞ্জাম দিতে হবে। পাশাপাশি সকল অংশীজনদের স্বীয় দায়বদ্ধতাকে অগ্রাধিকার দিয়ে মুক্তমনে সহযোগিতার হস্ত প্রসারিত করতে হবে। অন্যথায় জাতীয় স্বার্থ উপেক্ষিত হওয়া ছাড়াও লক্ষ্যভ্রষ্ট হবে রাজনীতি। সংগঠনের মহাসচিব অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদীন জুবাইর বলেছেন- গোটা বিশ্ব এখন অশুভ মন্দায় কবলিত। দীর্ঘদিন ধরে রাশিয়া- ইউক্রেন যুদ্ধের অশুভ প্রভাব বিশ্বের অপরাপর দেশের ন্যায় বাংলাদেশকেও বিশাল এক কঠিন সমস্যার মুখোমুখি দাঁড় করেছে। জ্বালানী সংকট, ডলারের মূল্য বৃদ্ধি, রিজার্ভ এর অপ্রতুলতা, মূল্যস্ফীতির নেতিবাচক প্রভাব, বেকারতœ, নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি, খাদ্য সংকটসহ ইত্যাকার বিষয়াদি জনজীবনে এক দুঃসহ পরিস্থিতি বিরাজ করছে। অতএব, একবিংশ শতাব্দীর এহেন কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আজকের কাউন্সিলে করিৎকর্মাদের নিয়ে দক্ষ, যোগ্য ও সময়োপযোগী নেতৃত্ব গড়ে তুলতে হবে। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর উদ্যোগে অদ্য ৩১ ডিসেম্বর ২২ ঢাকা ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে বক্তারা উপরোক্ত মন্তব্য করেন। সংগঠনের চেয়ারম্যান পীরে তরিকত আল্লামা ছৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় কাউন্সিলে প্রথম অধিবেশনে প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনঃ- ১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক মন্ত্রী বীর মুক্তিযুদ্ধা আলহাজ আমির হোসেন আমু, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেনঃ- ওয়াকার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- পীরে তরিকত আল্লামা নাছেরুল হক চিশতী, ডঃ আল্লামা কফিল উদ্দীন সরকার সালেহী, ডঃ আল্লামা মাহবুবুর রহমান, অধ্যক্ষ আল্লামা এস এম ফরিদ উদ্দীন, মাওলানা কাজী জসিম উদ্দিন, মাওলানা পীরে তরিকত আবু হানিফ মধুপুরী, পীরে তরিকত আল্লামা মোশাররফ হোসেন হেলালী, পীরে তরিকত আল্লামা খাজা আরিফুর রহমান তাহেরী, আল্লামা মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদী, শাহজাদা ছৈয়দ মাহমুদ শাহ মোজদ্দেদী,এডভোকেট একরামুল হক, পীরে তরিকত মাওলানা নাজমুল হক আখন্দ,পীরে তরিকত আল্লামা হাবিবুল্লাহ আল কাদেরী, কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির সচিব স ম হামেদ হোসাইন ও দপ্তর সম্পাদক মাওলানা মনির হোসাইন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে উপস্থিত ছিলেন – এইচ এম মুজিবুল হক শাকুর, অধ্যাপক ছৈয়দ হাফেজ আহমদ, অধ্যক্ষ মাওলানা জসিম উদ্দিন তৈয়বী, মোহাম্মদ মনির হোসেন, আলহাজ্ব মাওলানা ওয়াহেদ মুরাদ, মাওলানা এ এম মঈনউদ্দীন চৌধুরী হালিম, এ বি এম আরাফাত মোল্লা ও ফরিদ মজুমদার। প্রথম অধিবেশন শেষে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার দাবীতে এক বিশাল গণমিছিল ঢাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে