ঢাকা ০২:৪৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অবিলম্বে গ্রাম পুলিশকে জাতীয়করণের দাবি

সোমবার সকাল ৯ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়ন গ্রাম পুলিশ বাহিনীকে জাতীয়করণ করার দাবীতে মানববন্ধন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এবং প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে।

কমান্ডার মোস্তফা কামাল চেয়ারম্যান এর সভাপতিত্বে ও এম এ নাছের এর পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সংযুক্ত শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও উপদেষ্টা মোসাদেক হোসেন স্বপন, সাধারণ সম্পাদক মোকাদ্দেম হোসেন, বাংলাদেশ সংযুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ বজলুর রহমান বাবলু ও গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়ন এর কেন্দ্রীয়, জেলা, থানার নেতৃবৃন্দ।

এ সময় মোহাম্মদ বজলুর রহমান বাবলু বলেন, গ্রাম পুলিশ ৭০টি বিষয়ে ২৪ ঘন্টা কাজ করে তাদের বেতন দফাদার ৭ হাজার মহল্লাদার ৬ হাজার ৫শত মোট বেতন দেওয়া হয়। তার মধ্যে অর্ধেক স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় অর্ধেক ইউনিয়ন পরিষদ। ইউনিয়ন পরিষদ এর অংশ ঠিক পায়না। সাড়ে তিন হাজার টাকায় তাদের পরিবার নিয়ে জীবন যাপন করতে হয়। এমন বেতনে পৃথিবীর কোথাও কোন সরকারি, বেসরকারি, ব্যাক্তি পর্যায়ে নাই। এটা বলতেও লজ্জা লাগে।

তিনি বলেনম, ৭৫ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু গ্রাম পুলিশ বাহিনী কে জাতীয় করনের জন্য প্রজ্ঞাপন জারি করেন কিন্তু আজ পর্যন্ত সেটা বাস্তবায়ন হয়নি। যদি অবিলম্বে গ্রাম পুলিশ বাহিনী কে জাতীয় করন ও সকল সদস্য কে রাজস্ব খাতের অন্তর্ভুক্ত না করা হয় তাহলে সারা দেশে কর্মবিরতি দিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে ঢাকায় গণভবনে অবস্থান করবে। যতদিন দাবি আদায় না হবে ততদিন গণভবন ছেড়ে যাবে না।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক গবেষণা করে একটি পরিবারের সর্বনিম্ন ২৪ হাজার এর নিচে চলতে পারে না। সে লক্ষ্যে গত বছর থেকে সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠানে দিনে ৮ ঘন্টার পারিশ্রমিক ২৪ হাজার টাকা দিচ্ছে। শ্রমিকরা ৮ ঘন্টা কাজ করে মাসে সর্বনিম্ন ৮ হাজার সে হিসেবে ২৪ ঘন্টা পরিশ্রম করলে কমপক্ষে ২৪ হাজার পাওয়ার কথা। কাজেই গ্রাম পুলিশ বাহিনীর দাবি যৌক্তিক, ন্যায় সংগত। না মানাটা অমানবিক এবং অন্যায় অবিচার। আসা করি আজকের পরে এ দাবি মেনে নিয়ে জাতীয় করন বাস্তবায়নের কাজ সম্পুর্ন করবে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

অবিলম্বে গ্রাম পুলিশকে জাতীয়করণের দাবি

আপডেট সময় ০১:০৩:০৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মার্চ ২০২৩

সোমবার সকাল ৯ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়ন গ্রাম পুলিশ বাহিনীকে জাতীয়করণ করার দাবীতে মানববন্ধন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এবং প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে।

কমান্ডার মোস্তফা কামাল চেয়ারম্যান এর সভাপতিত্বে ও এম এ নাছের এর পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সংযুক্ত শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও উপদেষ্টা মোসাদেক হোসেন স্বপন, সাধারণ সম্পাদক মোকাদ্দেম হোসেন, বাংলাদেশ সংযুক্ত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ বজলুর রহমান বাবলু ও গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়ন এর কেন্দ্রীয়, জেলা, থানার নেতৃবৃন্দ।

এ সময় মোহাম্মদ বজলুর রহমান বাবলু বলেন, গ্রাম পুলিশ ৭০টি বিষয়ে ২৪ ঘন্টা কাজ করে তাদের বেতন দফাদার ৭ হাজার মহল্লাদার ৬ হাজার ৫শত মোট বেতন দেওয়া হয়। তার মধ্যে অর্ধেক স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় অর্ধেক ইউনিয়ন পরিষদ। ইউনিয়ন পরিষদ এর অংশ ঠিক পায়না। সাড়ে তিন হাজার টাকায় তাদের পরিবার নিয়ে জীবন যাপন করতে হয়। এমন বেতনে পৃথিবীর কোথাও কোন সরকারি, বেসরকারি, ব্যাক্তি পর্যায়ে নাই। এটা বলতেও লজ্জা লাগে।

তিনি বলেনম, ৭৫ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু গ্রাম পুলিশ বাহিনী কে জাতীয় করনের জন্য প্রজ্ঞাপন জারি করেন কিন্তু আজ পর্যন্ত সেটা বাস্তবায়ন হয়নি। যদি অবিলম্বে গ্রাম পুলিশ বাহিনী কে জাতীয় করন ও সকল সদস্য কে রাজস্ব খাতের অন্তর্ভুক্ত না করা হয় তাহলে সারা দেশে কর্মবিরতি দিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে ঢাকায় গণভবনে অবস্থান করবে। যতদিন দাবি আদায় না হবে ততদিন গণভবন ছেড়ে যাবে না।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক গবেষণা করে একটি পরিবারের সর্বনিম্ন ২৪ হাজার এর নিচে চলতে পারে না। সে লক্ষ্যে গত বছর থেকে সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠানে দিনে ৮ ঘন্টার পারিশ্রমিক ২৪ হাজার টাকা দিচ্ছে। শ্রমিকরা ৮ ঘন্টা কাজ করে মাসে সর্বনিম্ন ৮ হাজার সে হিসেবে ২৪ ঘন্টা পরিশ্রম করলে কমপক্ষে ২৪ হাজার পাওয়ার কথা। কাজেই গ্রাম পুলিশ বাহিনীর দাবি যৌক্তিক, ন্যায় সংগত। না মানাটা অমানবিক এবং অন্যায় অবিচার। আসা করি আজকের পরে এ দাবি মেনে নিয়ে জাতীয় করন বাস্তবায়নের কাজ সম্পুর্ন করবে।