ঢাকা ০৩:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নাঙ্গলকোটে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলেন ছাত্রলীগ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলেন ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার উপজেলার জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়নের কাজি মান্দ্রা গ্রামের কৃষক মহিনের ফসলি জমির ধান কেটে কার্যক্রম শুরু করেন।

জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মো: সাফায়েত হোসেন নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার ধান কাটা শুরু হয়।

ছাত্রনেতা সাফায়েত বলেন, “ধান কেটে কৃষকের ঘরে ‘নিরাপদে’ পৌঁছে দিতে নেতাকর্মীসহ তরুণ প্রজন্মের প্রতি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর আহ্বানের ঠিক ২ দিন পর সকাল হতে জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়ন কৃষকের ধানকাটা শুরু করে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ।”

কৃষক মহিন বলেন, ধান কাটা শ্রমিকদের মজুরি অন্যন্য বছরের তুলনায় এবার অনেকটাই বেশি। শ্রমিক সংকটও আছে। এই অবস্থায় ছাত্রলীগের এই উদ্যোগ তার উপকার করেছে। তিনি বলেন, “ঝড়বৃষ্টির শঙ্কায় জমির পাকা ধান ঘরে তোলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলাম। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জমির ধানগুলো কেটে দিয়েছে। তাদের এমন কাজে আমি ভীষণ খুশি। কৃতজ্ঞতা জানাই।

ছাত্রলীগ নেতা সাফায়েত বলেন, “জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে শ্রমিক সংকটের কারণে পাকা ধান কেটে কৃষকের ঘুরে তুলে দেওয়া হচ্ছে।

“চাহিদা অনুযায়ী কৃষকদের সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দেশের যে কোনো দুর্যোগ, দুঃসময়ে মানুষের পাশে অতীত এর মত বর্তমানেও দাঁড়াবে। আগামীতেও আমরা সাধারণ মানুষের পাশে থাকব।”

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

নাঙ্গলকোটে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলেন ছাত্রলীগ

আপডেট সময় ০২:২৮:০৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিলেন ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার উপজেলার জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়নের কাজি মান্দ্রা গ্রামের কৃষক মহিনের ফসলি জমির ধান কেটে কার্যক্রম শুরু করেন।

জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মো: সাফায়েত হোসেন নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার ধান কাটা শুরু হয়।

ছাত্রনেতা সাফায়েত বলেন, “ধান কেটে কৃষকের ঘরে ‘নিরাপদে’ পৌঁছে দিতে নেতাকর্মীসহ তরুণ প্রজন্মের প্রতি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর আহ্বানের ঠিক ২ দিন পর সকাল হতে জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়ন কৃষকের ধানকাটা শুরু করে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ।”

কৃষক মহিন বলেন, ধান কাটা শ্রমিকদের মজুরি অন্যন্য বছরের তুলনায় এবার অনেকটাই বেশি। শ্রমিক সংকটও আছে। এই অবস্থায় ছাত্রলীগের এই উদ্যোগ তার উপকার করেছে। তিনি বলেন, “ঝড়বৃষ্টির শঙ্কায় জমির পাকা ধান ঘরে তোলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলাম। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জমির ধানগুলো কেটে দিয়েছে। তাদের এমন কাজে আমি ভীষণ খুশি। কৃতজ্ঞতা জানাই।

ছাত্রলীগ নেতা সাফায়েত বলেন, “জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে শ্রমিক সংকটের কারণে পাকা ধান কেটে কৃষকের ঘুরে তুলে দেওয়া হচ্ছে।

“চাহিদা অনুযায়ী কৃষকদের সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দেশের যে কোনো দুর্যোগ, দুঃসময়ে মানুষের পাশে অতীত এর মত বর্তমানেও দাঁড়াবে। আগামীতেও আমরা সাধারণ মানুষের পাশে থাকব।”