ঢাকা ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরুড়া সিএনজিতে অতিরিক্ত যাত্রী বহনে দূর্ঘটনার আশঙ্কা

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার বিভিন্ন সড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশায় দূর্ঘটনার আশঙ্কা নিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করতে দেখা গেছে।

সিএনজির সামনে চালক সহ ৪ জন বসে। যদি ও সিএনজির সামনে ১ জন নেয়ার বৈধতা রয়েছে।
একটি সিএনজিতে মোট ৪ জন যাত্রী নেয়ার কথা। সেখানে বরুড়ার বিভিন্ন সড়কে সিএনজিতে ৬ জন করে যাত্রী আসা নেওয়া করে।
বরুড়া বাতাইছড়ি সড়ক, বরুড়া রামমোহন সড়ক, বরুড়া ঝলম সড়ক, বরুড়া শশাইয়া আড্ডা সড়ক, বরুড়া ভাউকসার সড়ক সহ বিভিন্ন সড়কে সিএনজি চলাচল করে। প্রায় সড়কে সিএনজিতে (ড্রাইভার সহ) ৭ জন করে যাত্রী বসে। কিছু কিছু ড্রাইভার আবার মোট ৫ জন করে যাত্রী আসা নেওয়া করে।
সচেতন মানুষের দাবী, সামনে ৩ জন যাত্রী নিয়ে ড্রাইভার বসতে কষ্ট হয়। এতে করে যে কোন সময় দূর্ঘটনার আশঙ্কা থাকে। স্হানীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে উদ্যেগ নেয়া জরুরী বলে মনে করেন।
নাম প্রকাশে অনি ইচ্ছুক এক ড্রাইভার বলেন, জিপির নামে চাঁদা বাজি করা হচ্ছে। দৈনিক চাঁদা, মাসিক চাঁদা রয়েছে, যার ফলে মাঝে মধ্যে সামনে ৩ জন যাত্রী নেই।

এ বিষয় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ফিরোজ হোসেন বলেন, আমি নতুন এ থানায় যোগদান করছি। বিষয়টি নিয়ে নজরদারি বাড়াবো। অনিয়মের বিরুদ্ধে অবহিত করবেন, অবশ্য ব্যবস্হা নেব। তাছাড়া যানজট নিরসনের উদ্যেগ নিতে হবে। আইনের প্রতি সবাই শ্রদ্ধাশীল হতে হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

বরুড়া সিএনজিতে অতিরিক্ত যাত্রী বহনে দূর্ঘটনার আশঙ্কা

আপডেট সময় ০৬:৩১:১০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ ২০২৩

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার বিভিন্ন সড়কে সিএনজি চালিত অটোরিকশায় দূর্ঘটনার আশঙ্কা নিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করতে দেখা গেছে।

সিএনজির সামনে চালক সহ ৪ জন বসে। যদি ও সিএনজির সামনে ১ জন নেয়ার বৈধতা রয়েছে।
একটি সিএনজিতে মোট ৪ জন যাত্রী নেয়ার কথা। সেখানে বরুড়ার বিভিন্ন সড়কে সিএনজিতে ৬ জন করে যাত্রী আসা নেওয়া করে।
বরুড়া বাতাইছড়ি সড়ক, বরুড়া রামমোহন সড়ক, বরুড়া ঝলম সড়ক, বরুড়া শশাইয়া আড্ডা সড়ক, বরুড়া ভাউকসার সড়ক সহ বিভিন্ন সড়কে সিএনজি চলাচল করে। প্রায় সড়কে সিএনজিতে (ড্রাইভার সহ) ৭ জন করে যাত্রী বসে। কিছু কিছু ড্রাইভার আবার মোট ৫ জন করে যাত্রী আসা নেওয়া করে।
সচেতন মানুষের দাবী, সামনে ৩ জন যাত্রী নিয়ে ড্রাইভার বসতে কষ্ট হয়। এতে করে যে কোন সময় দূর্ঘটনার আশঙ্কা থাকে। স্হানীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে উদ্যেগ নেয়া জরুরী বলে মনে করেন।
নাম প্রকাশে অনি ইচ্ছুক এক ড্রাইভার বলেন, জিপির নামে চাঁদা বাজি করা হচ্ছে। দৈনিক চাঁদা, মাসিক চাঁদা রয়েছে, যার ফলে মাঝে মধ্যে সামনে ৩ জন যাত্রী নেই।

এ বিষয় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ফিরোজ হোসেন বলেন, আমি নতুন এ থানায় যোগদান করছি। বিষয়টি নিয়ে নজরদারি বাড়াবো। অনিয়মের বিরুদ্ধে অবহিত করবেন, অবশ্য ব্যবস্হা নেব। তাছাড়া যানজট নিরসনের উদ্যেগ নিতে হবে। আইনের প্রতি সবাই শ্রদ্ধাশীল হতে হবে।