ঢাকা ১১:৫৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo চাঁপাইনবাবগঞ্জে পৃথক অভিযানে হেরোইন ও ফেন্সিডিল উদ্ধার সহ আটক ৩ Logo হারানো মোবাইল উদ্ধারে তৎপরতা বাড়ানোর নির্দেশ Logo পাবনা-২ আসনে প্রার্থিতা ফেরত পেতে ডলি সায়ন্তনীর আপিল Logo নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্গনের অভিযোগে ফেনী-১ আসনের আ.লীগ প্রার্থীকে তলব Logo সুন্দরগঞ্জে বোরো বীজ ও সার বিতরণ Logo গুলশানের নিধি ট্রেড ইন্টারন্যাশনালকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা Logo সিংড়ায় মেয়রের গাড়ি, ২টি অ্যাম্বুলেন্সসহ ১১টি যানবাহন আগুনে Logo ২৮ অক্টোবর থেকে সারা দেশে ২৫৩টি স্থানে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা Logo কিউবার প্রধানমন্ত্রী সফর চীন-কিউবার মধ্যে অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে Logo বেলারুশ-চীন সর্বজনীন সার্বিক কৌশলগত অংশীদারিত্বের সম্পর্কের বিকাশ ঘটাবে; লুকাশেঙ্কো

ভৈরবে মা-ছেলের আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলার ভিকটিমের শাশুড়ি গ্রেফতার

মো: ওয়াহিদ, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মা-ছেলের আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলার রহস্য উদ্ঘাটন ও এজাহারনামীয় মূল আসামি ভিকটিমের শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ, পিপিএম (বার) এর নির্দেশে জেলা ডিবি পুলিশ ও ভৈরব থানার সমন্বয়ে একটি বিশেষ টিম তথ্য প্রযুক্তি সহায়তায় এজাহারনামীয় আসামী ১। বেবী আক্তার (৫৫), স্বামী- ফারুক মিয়া, সাং- শম্ভুপুর পুর শান্তিপাড়া, থানা- ভৈরব, জেলা- কিশোরগঞ্জকে ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ থানাধীন উত্তর হারুয়া সাকিনের জনৈক সাফি উদ্দিনের বাড়ী হইতে বুধবার সকালে গ্রেফতার করেন।

এজাহারনামীয় আসামি ফরহাদ মিয়া (৩৫) এর সহিত গত প্রায় ০৬ বছর পূর্বে ভিকটিম জোনাকী আক্তার (২৩) এর বিবাহ হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনে ০৩ (তিন) বছরের একজন ছেলে সন্তান আলিফ ছিল। ভিকটিমের স্বামী ফরহাদ মিয়া (৩৫) বিবাহের পূর্ব হতে ইতালি থাকে। বিবাহের পর হতেই পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাহাদের দাম্পত্য জীবনে কলহের সৃষ্টি হয়। এজহারনামীয় আসামি বেবী আক্তার (ভিকটেমের শাশুড়ি) ভিকটিমকে সঠিকভাবে ভরণ-পোষণ দিত না বরং বিভিন্ন সময় ভিকটিমের বিরুদ্ধে তার স্বামীর নিকট নানা আজেবাজে কথা বলাসহ ভিকটিমকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতেন।

একপর্যায়ে গত ১৪/০৫/২০২৩ তারিখ রাত অনুমান ০৭.৩০ ঘটিকার সময় এজাহারনামীয় আসামি বেবী আক্তার (ভিকটেমের শাশুড়ি) তার বসত ঘরে ভিকটিমকে বিভিন্ন গালিগালাজসহ মারধর করে এবং গলায় ফাঁস দিয়ে মরে তাদের রাস্তা পরিষ্কার করে দিতে বলে। শাশুড়ির এহেন নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ১৫/০৫/২০২৩ তারিখ সকাল অনুমান ০৮.০০ ঘটিকা হতে সকাল অনুমান ১০.৪৫ ঘটিকার মধ্যবর্তী যেকোন সময় ভিকটিম তার ছেলে আলিফ (০৩)কে নিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

ভৈরব থানা পুলিশ ভিকটিম ও তার ছেলের লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে লাশ ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন। পরবর্তীতে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ০৫ (পাঁচ) জনের নামে ভৈরব থানায় মামলা করেন।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পৃথক অভিযানে হেরোইন ও ফেন্সিডিল উদ্ধার সহ আটক ৩

ভৈরবে মা-ছেলের আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলার ভিকটিমের শাশুড়ি গ্রেফতার

আপডেট সময় ০৪:১৭:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ মে ২০২৩

মো: ওয়াহিদ, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মা-ছেলের আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলার রহস্য উদ্ঘাটন ও এজাহারনামীয় মূল আসামি ভিকটিমের শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ, পিপিএম (বার) এর নির্দেশে জেলা ডিবি পুলিশ ও ভৈরব থানার সমন্বয়ে একটি বিশেষ টিম তথ্য প্রযুক্তি সহায়তায় এজাহারনামীয় আসামী ১। বেবী আক্তার (৫৫), স্বামী- ফারুক মিয়া, সাং- শম্ভুপুর পুর শান্তিপাড়া, থানা- ভৈরব, জেলা- কিশোরগঞ্জকে ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ থানাধীন উত্তর হারুয়া সাকিনের জনৈক সাফি উদ্দিনের বাড়ী হইতে বুধবার সকালে গ্রেফতার করেন।

এজাহারনামীয় আসামি ফরহাদ মিয়া (৩৫) এর সহিত গত প্রায় ০৬ বছর পূর্বে ভিকটিম জোনাকী আক্তার (২৩) এর বিবাহ হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনে ০৩ (তিন) বছরের একজন ছেলে সন্তান আলিফ ছিল। ভিকটিমের স্বামী ফরহাদ মিয়া (৩৫) বিবাহের পূর্ব হতে ইতালি থাকে। বিবাহের পর হতেই পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাহাদের দাম্পত্য জীবনে কলহের সৃষ্টি হয়। এজহারনামীয় আসামি বেবী আক্তার (ভিকটেমের শাশুড়ি) ভিকটিমকে সঠিকভাবে ভরণ-পোষণ দিত না বরং বিভিন্ন সময় ভিকটিমের বিরুদ্ধে তার স্বামীর নিকট নানা আজেবাজে কথা বলাসহ ভিকটিমকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতেন।

একপর্যায়ে গত ১৪/০৫/২০২৩ তারিখ রাত অনুমান ০৭.৩০ ঘটিকার সময় এজাহারনামীয় আসামি বেবী আক্তার (ভিকটেমের শাশুড়ি) তার বসত ঘরে ভিকটিমকে বিভিন্ন গালিগালাজসহ মারধর করে এবং গলায় ফাঁস দিয়ে মরে তাদের রাস্তা পরিষ্কার করে দিতে বলে। শাশুড়ির এহেন নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ১৫/০৫/২০২৩ তারিখ সকাল অনুমান ০৮.০০ ঘটিকা হতে সকাল অনুমান ১০.৪৫ ঘটিকার মধ্যবর্তী যেকোন সময় ভিকটিম তার ছেলে আলিফ (০৩)কে নিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

ভৈরব থানা পুলিশ ভিকটিম ও তার ছেলের লাশের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করে লাশ ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন। পরবর্তীতে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ০৫ (পাঁচ) জনের নামে ভৈরব থানায় মামলা করেন।