ঢাকা ০৩:৫২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লালমনিরহাটে বেগম রোকেয়া দিবস পালিত

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ ‘সবার মাঝে ঐক্য গড়ি – নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করি’ এই প্রতিপাদ্যে লালমনিরহাটে
২৫নভেম্বর থেকে ১০ডিসেম্বর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস উৎযাপন করা হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ১০টায় লালমনিরহাট মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গন থেকে বর্নাঢ্য র্য্যালী বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ শেষে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দিবসের তাৎপর্য নিয়ে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. মতিয়ার রহমান, পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম।
জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক রশিদা খাতুনের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সফুরা বেগম রুমী, ক্যাপ্টেন (অবঃ) আজিজুল হক বীর প্রতীক, পৌর মেয়র রেজাউল করিম স্বপন, সদর উপজেলা পরিষদ নারী ভাইস চেয়ারম্যান লতিফা বেগম লাকী প্রমুখ বক্তব্য দেন। পরে জেলার শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের মাঝে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

লালমনিরহাটে বেগম রোকেয়া দিবস পালিত

আপডেট সময় ০৬:৩৯:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২২

লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ ‘সবার মাঝে ঐক্য গড়ি – নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করি’ এই প্রতিপাদ্যে লালমনিরহাটে
২৫নভেম্বর থেকে ১০ডিসেম্বর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস উৎযাপন করা হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ১০টায় লালমনিরহাট মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গন থেকে বর্নাঢ্য র্য্যালী বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ শেষে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দিবসের তাৎপর্য নিয়ে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. মতিয়ার রহমান, পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম।
জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক রশিদা খাতুনের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সফুরা বেগম রুমী, ক্যাপ্টেন (অবঃ) আজিজুল হক বীর প্রতীক, পৌর মেয়র রেজাউল করিম স্বপন, সদর উপজেলা পরিষদ নারী ভাইস চেয়ারম্যান লতিফা বেগম লাকী প্রমুখ বক্তব্য দেন। পরে জেলার শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের মাঝে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।