ঢাকা ০১:৩৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo কুমিল্লা- সিলেট মহাসড়ক অবরুদ্ধ করে রেখেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা Logo ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা’র সহধর্মীনি এডভোকেট সিগমা হুদার ইন্তেকাল Logo আমতলীতে ২য় শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ, ধর্ষক আটক Logo বাঘাইছড়িতে ছাত্রলীগের প্রতিবাদ মিছিল Logo সরাইলে কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ Logo ভাঙ্গায় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-৩ আহত ৪০ Logo রূপসায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন Logo শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ Logo সদরপুরে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া Logo যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাসিম এর মুত‍্যু বার্ষিকী পালিত

হকারদের জন্য জাতীয় নীতিমালা প্রনয়ন করা হবে : মেয়র তাপস

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারি বাংলাদেশ হকার সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস কে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ হকার সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসাইন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা-৮ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা রাশেদ খান মেনন। বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারতের ন্যাশনাল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক শ্রী শক্তিমান ঘোষ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের সহ-সভাপতি মীর হোসেন আক্তার। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হারুন উর রশিদ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মেয়র তাপস বলেন, আমার নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী হকারদের সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনার জন্য নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে। ঢাকা শহরকে ৩ ভাগে বিভক্ত করে হকারদেরকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। রেড অঞ্চলে হকাররা বসতে পারবেন না। হলুদ অঞ্চলে বিশেষ বিশেষ সময়ে তারা বসতে পারবেন এবং সবুজ এলাকায় হকাররা সার্বক্ষনিক ব্যবসা চালিয়ে যেতে পারবেন। তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশন হকারদের কাছ থেকে কোন অর্থ আদায় করে না। কোন ব্যক্তি যদি হকারদের কাছ থেকে কোন অর্থ আদায় করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন হানিফ ফ্লাইওভার থেকে জিরো পয়েন্ট এবং বঙ্গ ভবন থেকে জিরো পয়েন্ট এই দুই রাস্তায় কোন হকারদের বসতে দেয়া হবে না। তবে এখানকার হকারদেরকে তিনি ঢাকা শহরের প্রাণকেন্দ্রেই পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবেন। এ ব্যাপারে তিনি হকারদের কাছ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।
প্রধান অতিথির ভাষণে জননেতা রাশেক খান মেনন এমপি বলেন, ঢাকা-৮ নির্বাচনী সংসদীয় আসনে আমি নির্বাচিত সংসদ সদস্য। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে আমার আসনে সর্বাধিক হকার রয়েছে। হকারদের ভোটেই আমরা নির্বাচিত হয়েছি। ফলে হকারদের প্রতি আমাদের দায়িত্ব রয়েছে। হকাররা যাতে নিরাপদে ব্যবসা চালিয়ে যেতে পারে তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা আমাদের দায়িত্বের মধ্যে পরে। এ ব্যাপারে তিনি ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপসের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, তিনি হকারদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করলে তার সর্বাত্মক সমর্থন থাকবে।
বিশেষ অতিথির ভাষণে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম বলেন, এক শ্রেণীর লাইনম্যানধারী লোকেরা হকারদের উপর জুলুম-নির্যাতন চালায়। এ কাজে নগর ভবনের কতিপয় দুর্নীতি পরায়ন কর্মকর্তা ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা যুক্ত রয়েছেন বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, হকাররা সব সময়ই নৌকার পক্ষে ভোট দিয়েছেন, ভবিষ্যতেও দিবেন। তাই হকারদের ভালো-মন্দ দেখার দায়িত্ব আওয়ামী লীগ তথা সিটি কর্পোরেশন ও সরকারের। এ ব্যাপারে তিনি মেয়রকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়র্ড কাউন্সিলর এনামুল হক আবুল, হকার সংগ্রাম পরিষদের নেতা কামাল সিদ্দিকী, আবুল কালাম জুয়েল, সাইজুদ্দিন মিয়া, আব্দুল মন্নান, এম এ খায়ের, শফিকুল ইসলাম বাবুল, মুশফিকুর রহমান শিমুল, সেকান্দার হায়াৎ, নজরুল ইসলাম নসু, আজিজা সুলতানা, খায়রুল বাশার, বিউটি বেগম, বাদল মিয়া, কামাল হোসেন প্রমুখ।

আপলোডকারীর তথ্য

কুমিল্লা- সিলেট মহাসড়ক অবরুদ্ধ করে রেখেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা

হকারদের জন্য জাতীয় নীতিমালা প্রনয়ন করা হবে : মেয়র তাপস

আপডেট সময় ১০:৩৩:০২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৩

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারি বাংলাদেশ হকার সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস কে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ হকার সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসাইন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা-৮ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা রাশেদ খান মেনন। বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা জননেতা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারতের ন্যাশনাল ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক শ্রী শক্তিমান ঘোষ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের সহ-সভাপতি মীর হোসেন আক্তার। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হারুন উর রশিদ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মেয়র তাপস বলেন, আমার নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী হকারদের সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনার জন্য নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে। ঢাকা শহরকে ৩ ভাগে বিভক্ত করে হকারদেরকে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে হবে। রেড অঞ্চলে হকাররা বসতে পারবেন না। হলুদ অঞ্চলে বিশেষ বিশেষ সময়ে তারা বসতে পারবেন এবং সবুজ এলাকায় হকাররা সার্বক্ষনিক ব্যবসা চালিয়ে যেতে পারবেন। তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশন হকারদের কাছ থেকে কোন অর্থ আদায় করে না। কোন ব্যক্তি যদি হকারদের কাছ থেকে কোন অর্থ আদায় করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন হানিফ ফ্লাইওভার থেকে জিরো পয়েন্ট এবং বঙ্গ ভবন থেকে জিরো পয়েন্ট এই দুই রাস্তায় কোন হকারদের বসতে দেয়া হবে না। তবে এখানকার হকারদেরকে তিনি ঢাকা শহরের প্রাণকেন্দ্রেই পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবেন। এ ব্যাপারে তিনি হকারদের কাছ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।
প্রধান অতিথির ভাষণে জননেতা রাশেক খান মেনন এমপি বলেন, ঢাকা-৮ নির্বাচনী সংসদীয় আসনে আমি নির্বাচিত সংসদ সদস্য। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মধ্যে আমার আসনে সর্বাধিক হকার রয়েছে। হকারদের ভোটেই আমরা নির্বাচিত হয়েছি। ফলে হকারদের প্রতি আমাদের দায়িত্ব রয়েছে। হকাররা যাতে নিরাপদে ব্যবসা চালিয়ে যেতে পারে তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা আমাদের দায়িত্বের মধ্যে পরে। এ ব্যাপারে তিনি ঢাকা দক্ষিণের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপসের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, তিনি হকারদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করলে তার সর্বাত্মক সমর্থন থাকবে।
বিশেষ অতিথির ভাষণে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম বলেন, এক শ্রেণীর লাইনম্যানধারী লোকেরা হকারদের উপর জুলুম-নির্যাতন চালায়। এ কাজে নগর ভবনের কতিপয় দুর্নীতি পরায়ন কর্মকর্তা ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা যুক্ত রয়েছেন বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, হকাররা সব সময়ই নৌকার পক্ষে ভোট দিয়েছেন, ভবিষ্যতেও দিবেন। তাই হকারদের ভালো-মন্দ দেখার দায়িত্ব আওয়ামী লীগ তথা সিটি কর্পোরেশন ও সরকারের। এ ব্যাপারে তিনি মেয়রকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৩নং ওয়র্ড কাউন্সিলর এনামুল হক আবুল, হকার সংগ্রাম পরিষদের নেতা কামাল সিদ্দিকী, আবুল কালাম জুয়েল, সাইজুদ্দিন মিয়া, আব্দুল মন্নান, এম এ খায়ের, শফিকুল ইসলাম বাবুল, মুশফিকুর রহমান শিমুল, সেকান্দার হায়াৎ, নজরুল ইসলাম নসু, আজিজা সুলতানা, খায়রুল বাশার, বিউটি বেগম, বাদল মিয়া, কামাল হোসেন প্রমুখ।