ঢাকা ০৮:৫৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo কুমিল্লা- সিলেট মহাসড়ক অবরুদ্ধ করে রেখেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা Logo ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা’র সহধর্মীনি এডভোকেট সিগমা হুদার ইন্তেকাল Logo আমতলীতে ২য় শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ, ধর্ষক আটক Logo বাঘাইছড়িতে ছাত্রলীগের প্রতিবাদ মিছিল Logo সরাইলে কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ Logo ভাঙ্গায় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-৩ আহত ৪০ Logo রূপসায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন Logo শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মুরাদনগরে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ Logo সদরপুরে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া Logo যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাসিম এর মুত‍্যু বার্ষিকী পালিত

দিনে গ্রাম পুলিশ রাতে চোর

মোঃ ইলিয়াস আলী, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া রাতে চুরি করে পালানোর সময় হাতে নাতে ধরা পড়ল গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেন(৩৫)।

বেলাল ২০নং রুহিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের চানপাড়া এলাকার মতিউর রহমান মতির ছেলে।

জানা গেছে, শনিবার (২৪ডিসেম্বর) রাতে ২০ নং রুহিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের সেনিহাড়ি পুকুর পাড় এলাকায় মৃত মনসুর আলীর ছেলে হারুন রশীদের বাড়িতে চুরির করে পালানোর সময় বেলাল হোসেন কে আটক করে এলাবাসী।

বাড়ির মালিক হারুন রশীদ বলেন, আমি ঢাকায় একজন এ্যাডভোকেটের ক্লার্ক হিসেবে কর্মরত ছিলেন শনিবার রাতে তিনি ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন ঘর নির্মাণের জন্য ৫৫ হাজার টাকা এবং আসবাবপত্র বাড়িতে রেখে আমি আমার মায়ের ঘরে ছিলাম। আমি আমার ঘরে এসে দেখি সব কিছু এলোমেলো টর্চ লাইটের মাধ্যমে দেখি বেলাল হোসেন পালানোর চেষ্টা করে আমি চিৎকার করলে আশপাশ লোকজন সহ বেলাল হোসেনকে আটক করি।

তিনি আরও বলেন, আমি তৎক্ষনাৎ জিজ্ঞাসা করলে বেলাল হোসেন বলে আমরা চারজন আছি আপনার টাকা ও মালামাল ফেরত দিয়ে দিব।

চুরির অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেন বলেন, আমি একাই ঘরে ঢুকেছি তারপর ধরে ফেলছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আসির উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেনকে এলাকাবাসী হাতেনাতে ঘরের মধ্যে ধরে এবং আমাকে ফোনে জানানোর পরে আমি গিয়ে দেখি গ্রাম পুলিশকে আটক করেছে। পরে আমি জিজ্ঞেস করে জানতে পারি চুরির ঘটনা সত্য। তারপর পুলিশ এসে গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেনকে থানায় নিয়ে যায়।

রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সোহেল রানা বলেন, ট্রিপল নাইনের (৯৯৯) সংবাদ পেয়ে তাকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলার রুজু করার প্রক্রিয়া চলছে।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু তাহের মোঃ সামসুজ্জামান মুঠোফোনে বলেন, গ্রাম পুলিশের চুরির ঘটনা শুনেছি এবং রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সোহেল রানার সাথে কথা বলছি। অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করার প্রক্রিয়া চলছে।

আপলোডকারীর তথ্য

কুমিল্লা- সিলেট মহাসড়ক অবরুদ্ধ করে রেখেছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা

দিনে গ্রাম পুলিশ রাতে চোর

আপডেট সময় ০৭:৩৬:০৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২২

মোঃ ইলিয়াস আলী, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া রাতে চুরি করে পালানোর সময় হাতে নাতে ধরা পড়ল গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেন(৩৫)।

বেলাল ২০নং রুহিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের চানপাড়া এলাকার মতিউর রহমান মতির ছেলে।

জানা গেছে, শনিবার (২৪ডিসেম্বর) রাতে ২০ নং রুহিয়া পশ্চিম ইউনিয়নের সেনিহাড়ি পুকুর পাড় এলাকায় মৃত মনসুর আলীর ছেলে হারুন রশীদের বাড়িতে চুরির করে পালানোর সময় বেলাল হোসেন কে আটক করে এলাবাসী।

বাড়ির মালিক হারুন রশীদ বলেন, আমি ঢাকায় একজন এ্যাডভোকেটের ক্লার্ক হিসেবে কর্মরত ছিলেন শনিবার রাতে তিনি ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন ঘর নির্মাণের জন্য ৫৫ হাজার টাকা এবং আসবাবপত্র বাড়িতে রেখে আমি আমার মায়ের ঘরে ছিলাম। আমি আমার ঘরে এসে দেখি সব কিছু এলোমেলো টর্চ লাইটের মাধ্যমে দেখি বেলাল হোসেন পালানোর চেষ্টা করে আমি চিৎকার করলে আশপাশ লোকজন সহ বেলাল হোসেনকে আটক করি।

তিনি আরও বলেন, আমি তৎক্ষনাৎ জিজ্ঞাসা করলে বেলাল হোসেন বলে আমরা চারজন আছি আপনার টাকা ও মালামাল ফেরত দিয়ে দিব।

চুরির অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেন বলেন, আমি একাই ঘরে ঢুকেছি তারপর ধরে ফেলছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আসির উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেনকে এলাকাবাসী হাতেনাতে ঘরের মধ্যে ধরে এবং আমাকে ফোনে জানানোর পরে আমি গিয়ে দেখি গ্রাম পুলিশকে আটক করেছে। পরে আমি জিজ্ঞেস করে জানতে পারি চুরির ঘটনা সত্য। তারপর পুলিশ এসে গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেনকে থানায় নিয়ে যায়।

রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সোহেল রানা বলেন, ট্রিপল নাইনের (৯৯৯) সংবাদ পেয়ে তাকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলার রুজু করার প্রক্রিয়া চলছে।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু তাহের মোঃ সামসুজ্জামান মুঠোফোনে বলেন, গ্রাম পুলিশের চুরির ঘটনা শুনেছি এবং রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সোহেল রানার সাথে কথা বলছি। অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ বেলাল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করার প্রক্রিয়া চলছে।