ঢাকা ০৩:১৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরগুনায় মাদ্রাসারছাত্রী নিখোঁজের পর মরদেহ উদ্ধার

বরগুনায় নিখোঁজের দুইদিন পর বাড়ির পাশের জঙ্গল থেকে মাদ্রাসা পড়ুয়া এক কিশোরীর (১২) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৪ মে) রাতে বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উদ্ধারকৃত কিশোরী মোসা. রিপা স্থানীয় কোটবাড়িয়া কাদেরিয়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য শাহজাহান হাওলাদারের মেয়ে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার (৪ মে) সন্ধ্যার দিকে সদরের কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের কোটবাড়িয়া আদম মজনুর দরবার ব্রিজ এলাকায় উদ্ধার করেন পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে ওই শিক্ষার্থী নিখোঁজ হয় উল্লেখ করে বুধবার পরিবার থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে। পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশে জঙ্গলে স্থানীয়রা তার মরদেহ দেখতে পেয়ে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

কিশোরীর বাবা শাহজাহান হাওলাদার বলেন, আমাদের সন্দেহ প্রতিবেশী আল আমিন আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে হত্যা করে জঙ্গলে ফেলে রেখেছে। আমার মেয়ে নিখোঁজের পর থেকে এখন পর্যন্ত আল আমিন পলাতক রয়েছে।

ওসি আলী আহমেদ বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে কিভাবে সে মারা গেছে। এ ঘটনায় পরিবার মামলা করলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

বরগুনায় মাদ্রাসারছাত্রী নিখোঁজের পর মরদেহ উদ্ধার

আপডেট সময় ০৪:৫৮:০১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৫ মে ২০২৩

বরগুনায় নিখোঁজের দুইদিন পর বাড়ির পাশের জঙ্গল থেকে মাদ্রাসা পড়ুয়া এক কিশোরীর (১২) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৪ মে) রাতে বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উদ্ধারকৃত কিশোরী মোসা. রিপা স্থানীয় কোটবাড়িয়া কাদেরিয়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য শাহজাহান হাওলাদারের মেয়ে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার (৪ মে) সন্ধ্যার দিকে সদরের কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের কোটবাড়িয়া আদম মজনুর দরবার ব্রিজ এলাকায় উদ্ধার করেন পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে ওই শিক্ষার্থী নিখোঁজ হয় উল্লেখ করে বুধবার পরিবার থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে। পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশে জঙ্গলে স্থানীয়রা তার মরদেহ দেখতে পেয়ে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

কিশোরীর বাবা শাহজাহান হাওলাদার বলেন, আমাদের সন্দেহ প্রতিবেশী আল আমিন আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে হত্যা করে জঙ্গলে ফেলে রেখেছে। আমার মেয়ে নিখোঁজের পর থেকে এখন পর্যন্ত আল আমিন পলাতক রয়েছে।

ওসি আলী আহমেদ বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে কিভাবে সে মারা গেছে। এ ঘটনায় পরিবার মামলা করলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।